• Hillbd newsletter page
  • Hillbd rss page
  • Hillbd twitter page
  • Hillbd facebook page
সর্বশেষ
পাহাড়ে পানির উৎস সংরক্ষণের উদ্যোগ                    যুগান্তর রাঙামাটি প্রতিনিধির মায়ের পুণ্যকর্ম সম্পন্ন                    সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যানসহ পানছড়িতে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত তিন                    খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবীতে রাঙামাটিতে জেলা যুবদলের মানববন্ধন                    বর্তমান সরকারই দেশের ও শিক্ষার উন্নয়নে কাজ করেছে-দীপংকর তালুকদার এমপি                    রাঙামাটিতে বিভিন্ন ক্লাবে অভিযান চালিয়ে ১২ জনকে জরিমানা                    সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজ মুক্ত কাপ্তাই গড়া হবে-লেঃ কর্নেল তৌহিদ উজ্জামান                    পার্বত্য এলাকায় মোনঘর প্রতিষ্ঠানটি একটি বাতিঘর-দীপংকর তালুকদার এমপি                    সুভাষ চাকমা সভাপতি, পিন্টু চাকমা সাধারণ সম্পাদক ও ক্লিন চাকমা সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত                    চন্দ্রঘোনায় শিক্ষক-শিক্ষিকাদের নিয়ে আরএইচস্টেপের সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত                    পানছড়িতে পৌনে নয় কোটি টাকার প্রকল্প নেওয়া হয়েছে--বাসন্তী চাকমা এমপি                    রাঙামাটিতে পার্বত্য চট্টগ্রাম এলাকায় পানীয় জলের উৎস উন্নয়নের লক্ষ্যে জেলা পর্যায়ে এ্যাডভোকেসী সভা                    পার্বত্যাঞ্চলের প্রান্তিক জনগোষ্ঠীদের মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করতে সরকার কাজ করে যাচ্ছে                    রাঙামাটি প্রাণীসম্পদ দপ্তরে জেলা পরিষদের অর্থায়নে ভেটেরিনারি ঔষুধ বিতরণ                    রাঙামাটি পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়রের দায়িত্ব পেলেন জামাল উদ্দিন                    পানছড়িতে ইপসা ‘শো’ প্রকল্পের পুরস্কার বিতরণ ও সম্মাননা প্রদান                    বাঘাইছড়িতে দুর্বৃত্তদের গুলিতে এমএন লারমা গ্রুপের জনসংহতি সমিতির দুই কর্মী নিহত                    রাঙামাটিতে অ্যাকটিভ মাদার্স ফোরাম এর ভূমিকা ও করণীয় শীর্ষক কর্মশালা                    রাঙামাটিতে ৫৮ শতক জমির মালিকানা নিয়ে দুই দেওয়ানের পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন                    রাঙামাটিতে ধুমপান করার দায়ে ৬ব্যক্তিকে জরিমানা                    রুমা থেকে ৬ গ্রামবাসীকে অপহরণ করেছে দুর্বৃত্তরা                    
 

একটি সেতুই বদলে দিতে পারে দুর্গম জুরাছড়ি উপজেলাবাসীর উন্নয়ন

স্টাফ রিপোর্টার : হিলবিডি টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published: 28 Mar 2013   Thursday

একটি সেতুই বদলে দিতে পারে রাঙামাটির দুর্গম জুরাছড়ি উপজেলাবাসীর ভাগ্য উন্নয়ন। সেটি হল সামিরা-ঘিলাতলির এলাকার ছলক নদীর উপর সংযোগ সেতু। উপজেলাবাসীর  দীর্ঘ দিনের স্বপ্নের সেতুটি নির্মিত হলে একদিকে চার ইউনিয়নের প্রায় ৩০ হাজার মানুষের যাতায়াতের পথ সুগম হবে। অপরদিকে কৃষকদের উৎপাদিত পণ্য সহজেই উপজেলা সদরে বিক্রি করা সম্ভব হবে।

 

সম্প্রতি রাঙামাটির জেলার মধ্যে অন্যতম দুর্গম উপজেলা জুরাছড়িতে সরেজমিনে এলাকার নেতৃত্ব স্থানীয় এবং এলাকাবাসীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, জুরাছড়ি উপজেলার চার ইউনিয়ন জুরাছড়ি সদর, মৈদং, দুমদুম্যা ও বনযোগীছড়ার এলাকাবাসীর দীর্ঘ দিন ধরে সামিরা-ঘিলাতলির ছলক নদীর(শুভলং ছড়া) উপর একটি সেতু নির্মানের জন্য দাবি করে আসছেন। কিন্তু কোন সরকারই এলাকাবাসীর এই দাবী পুরণ করেনি। ফলে এই চার ইউনিয়নের প্রায় ৩০ হাজার মানুষের স্বপ্নের সামিরা-ঘিলাতলি সেতুটি স্বপ্ন হিসেবেই রয়েছে। এই সেতুটি নির্মিত হলে চার ইউনিয়নের সড়ক পথে সরাসরি সংযোগ স্থাপন ছাড়াও কৃষকদের উৎপাদিত পণ্য সহজেই উপজেলা সদরসহ রাঙামাটিতে বিক্রি করা যাবে। এতে স্থানীয় লোকজন অর্থনৈতিভাবে লাভ হওয়া ছাড়াও এলাকার প্রচুর পরিবর্তন ঘটবে। কিন্ত সেতুটি স্থাপিত না হওয়াতে এলাকার উন্নয়নসহ সব কিছুই থমকে রয়েছে।


সরেজমিনে আরও দেখা গেছে, জুরাছড়ি সদর উপজেলা থেকে মাত্র ৫থেকে ৬ কিলোমিটার দুরত্ব হচ্ছে এই সামিরা-ঘিলতলি সেতৃুর সংযোগ স্থানটি। জুরাছড়ি উপজেলা সদর থেকে সামিরা এলাকা পর্যন্ত গাড়ী চলাচল করতে পারলেও ছলক নদীর ওপর সেতু নির্মিত না হওয়াতে সরাসরি মৈদং ও দুমদুম্যা ইউনিয়নের যাওয়া যাচ্ছে না। এছাড়া বর্ষা মৌসুমের ছলক নদীর পানি বেড়ে গেলে এলাকার লোকজনের নৌকায় পাড়াপাড়ের জন্য ঝুকিঁপুর্ন হয়ে উঠে। বিশেষ করে সামিরা-ঘিলাতলি এলাকায় একটি মাত্র সরকারী প্রাইমারী স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের নৌকায় পাড়াপাড়ের অনেক সময় দুর্ঘটনা ঘটছে।


সামিরা মুখ এলাকার মুরুব্বী স্নেহ চাকমা জানান সামিরা-ঘিলাতলির সংযোগ সেতৃুটি না হওয়াতে চার ইউনিয়নের লোকজন খুব অসুবিধা রয়েছি। বিশেষ করে বর্ষাকালে ছলক নদীর পানি বেড়ে গেলে স্কুলের কমলমতি ছাত্র-ছাত্রীদের এবং দুমদুম্যা ও মৈদং ইউনিয়নের লোকজনদের পাড়াপাড়ের ভীষন অসুবিধা হয়। এই সেতুটি নির্মিত হলে উপজেলার চার ইউনিয়নের সংযোগসহ ইউনিয়নবাসী উপকৃত হবে।

জুরাছড়ি সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ক্যানন চাকমা জানান, সামিরা-ঘিলাতলি সেতুটি নির্মিত হলে উপজেলা সদরের সাথে বাকী তিন ইউনিয়ন মৈদং, দুমদুম্যা ও বনযোগী ছড়ার সাথে সড়ক পথে সরাসরি সংযোগ স্থাপিত হবে। পাশপাশি এলাকার লোকজনের অর্থনৈতিক উন্নয়নসহ এলাকার পরিবর্তন ঘটবে। তাই এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে অবিলম্বে এই সেতু নির্মানের জন্য সরকারের কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি।

 

জুরাছড়ি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান প্রবর্তক চাকমা জানান, উপজেলাবাসীর প্রাণের দাবি ও স্বপ্নের দাবি হচ্ছে সামিরা-ঘিলাতলি সংযোগের ছলক নদীর ওপর একটি মাত্র সেতু নির্মাণ করা। যেটি একশ দশ থেকে একশ বিশ মিটার লম্বায় এই সেতু নির্মিত হলে চার ইউনিয়নের প্রায় ৩০ হাজার মানুষের স্বপ্ন পূরণ হবে। পাশাপাশি কৃষকদের মাথার ঘাম পায়ে ফেলে আদা-হলুদ, কচু কলাসহ ইত্যাদি উৎপাদিত পণ্য সঠিক সময়ে উপজেলা সদরে নিয়ে গিয়ে বিক্রি করে নায্য মূল্য পাবে। তাছাড়া এই সেতুর মাধ্যমে চার ইউনিয়নের মধ্যে সরাসারি সড়ক পথে সংযোগ স্থাপিত হবে। তিনি আরও বলেন, বিগত দু বছর ধরে এই সেতু নির্মানের জন্য পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের মাধ্যমে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। ইতোমধ্যে স্থানীয় সরকার প্রকৌশ অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশীলর কাছেও আবেদন করেছেন। কিন্তু এখনো কোনো উত্তর পায়নি। তাই জুরাছড়িবাসীর কাছে বর্তমান সরকারের কাছে একমাত্র চাওয়া-পাওয়া হচ্ছে অবিলম্বের এই স্বপ্নের সেতুটি নির্মাণ করা।

--হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর

 

আর্কাইভ