• Hillbd newsletter page
  • Hillbd rss page
  • Hillbd twitter page
  • Hillbd facebook page
সর্বশেষ
রাঙামাটিতে জেলা পর্যায়ে শুদ্ধ সুরে জাতীয় সংগীত প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত                    কাপ্তাইয়ে অপহৃত ইউপি সদস্য মংচিং মারমার মুক্তির দাবীতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ                    পার্বত্যাঞ্চলেরর সকল জনগোষ্ঠীকে এগিয়ে নিতে বর্তমান সরকার আন্তরিকভাবে কাজ করছে- বৃষ কেতু চাকমা                    বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অন্তরের মমতা দিয়েই পাহাড়ের সমস্যা সমাধানে এগোচ্ছেন-পার্বত্য মন্ত্রী                    খাগড়াছড়িতে সপ্তাহব্যাপি আঞ্চলিক এসএমই পণ্য মেলা শুরু                    মংচিং মারমার অপহরণ ও মুক্তির দাবীতে বৃহস্পতিবার রাইখালীতে মানববন্ধন                    লামায় দুই সন্তানের জননীকে ধর্ষণের ঘটনায় আটক ২                    রাঙামাটিতে গুলিতে নিহতের ঘটনায় ইউপিডিএফের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বিবৃতি                    রাঙামাটিতে সেনাবাহিনীর সাথে ইউপিডিএফের গুলিবিনময়, নিহত ১, অস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার                    লামায় এতিম শিশুদের মাঝে বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের কম্বল বিতরণ                    রাঙ্গুনিয়ায় মোগলের হাটে ডিজিটাল ডাকঘর ভবনের উদ্বোধন                    বিয়াম ল্যাবরেটরী স্কুলের উদ্ধমুখী সম্প্রসারন ভবন উদ্বোধন                    আমদের জীবন,আমাদের স্বাস্থ্য আমাদের ভবিষ্যৎ প্রকল্পের কার্যক্রম শুরুর লক্ষ্য রাঙামাটিতে অবহিতকরণ সভা                    রাঙামাটিতে প্রতিষ্ঠান প্রধানদের মুজিববর্ষ পালনের আহ্বান জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের                    বরকলে শিক্ষার্থীদের নিয়ে মাদক বিরোধী আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত                    কৃষি ও খাদ্য নিরাপত্তা প্রকল্পের কার্যক্রম পরিদর্শনে রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান                    পার্বত্য ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশনের চেয়ারম্যানের সাথে পার্বত্য নাগরিক পরিষদের নেতৃৃবন্দের মধ্যে বৈঠক                    রাঙামাটিতে আশিকার উদ্যোগে আট দিনের কমিউনিটি এসেটরিপেয়ারিং প্রশিক্ষণ কোর্স সম্পন্ন                    বঙ্গবন্ধু নামটির সাথে জাতি-রাষ্ট্রের প্রাণের আবেগ সম্পৃক্ত- কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি                    রাঙামাটি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের সাথে কানাডা হাই কমিশন প্রতিনিধিদলের সৌজন্য সাক্ষাত                    রাঙামাটি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের সাথে ডেনিস প্রতিনিধিদলের সৌজন্য সাক্ষাৎ                    
 

কাপ্তাইয়ের শত বছরের বৌদ্ধদের তীর্থ স্থান চিৎমরম বৌদ্ধ বিহার

নজরুল ইসলাম লাভলু, কাপ্তাই : হিলবিডি টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published: 26 Jul 2016   Tuesday

রাঙামাটির কাপ্তাইয়ের শত বছরের পুরনো বৌদ্ধদের তীর্থ স্থান হচ্ছে চিৎমরম বৌদ্ধ বিহার। কর্ণফুলীর নদীর তীরবর্তী এলাকায় মনোরম প্রাকৃতিক পরিবেশে গড়ে ওঠা সুপ্রাচীন বৌদ্ধ বিহারটি পাক-ভারত সহ উপ মহাদেশের ঐতিহ্যের স্বাক্ষ্য হয়ে দাঁড়িয়ে আছে। তবে এ বৌদ্ধ বিহারটি একদিকে বৌদ্ধদের তীর্থ স্থান অন্যদিকে পর্যটন শিল্প গড়ে ওঠার অপার সম্ভাবনা রয়েছে।

 

স্থানীয় সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, কাপ্তাইয়ের চিৎমরম ইউনিয়নের ইউপি সদস্য উমং চৌধুরীর পিতামহ চন্দ্র চৌধুরী ১৯০৫ সালে প্রথম বৌদ্ধ বিহারটি প্রতিষ্ঠা করেন। তবে ১৯২৭ সালে একজন বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী বর্মী নাগরিক চিৎমরম এলাকায় এসে বসবাস করতে থাকেন। ওই ব্যক্তি নিজ অর্থ ব্যয় করে তখন র্বামা থেকে কাঠসহ বিভিন্ন নির্মাণ সামগ্রী ও নির্মাণ শিল্পী এনে নানা কারুকার্য্যরে সমন্বয় ঘটিয়ে বৌদ্ধ বিহারের শৈল্পিক রুপ দেন।

 

এভাবেই ঐতিহ্যবাহী বৌদ্ধ বিহারটি পুর্নতা লাভ করে। প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ঘেরা চিৎমরম এলাকায় গড়ে ওঠা সম্পুর্ন কাঠের তৈরি বৌদ্ধ বিহারটি দেখলে  চীনা সংস্কৃতির নিদর্শন বলে মনে হয়। ১৯৮৪ থেকে ১৯৯৮ সাল পর্যন্ত বৌদ্ধ বিহারের দায়ক-দায়িকারা স্বেচ্ছাশ্রমের মাধ্যমে নদীর তীরবর্তী এলাকা থেকে একটু দক্ষিনে নতুনভাবে শৈল্পিক ও নান্দনিক কারুকার্য মন্ডিত ইটের গাথুনি দিয়ে নতুন বৌদ্ধ বিহার নির্মাণ করেন।

 

সূত্র আরো জানায়, পুরনো এ বৌদ্ধ বিহারটিতে ১৯০৫ সাল থেকে ১৯৪০ সাল পর্যন্ত প্রতিষ্ঠাতা প্রধানের দায়িত্ব পালন করেন স্বর্গীয় ভিক্ষু উ পারাক্ষামা মহাথের। তার মৃত্যুর পর ১৯৪০ থেকে ১৯৯০ সাল পর্যন্ত বিহারের প্রধান দায়িত্ব পালন করেন উ পান্ডিত্য মহাথের। তার মৃত্যুর পর ১৯৯০ সাল থেকে চলতি দায়িত্বে নিয়োজিত রয়েছেন উ পান্ডিত্য মহাথেরর প্রধান শিষ্য উ পামোখা মহাথের।

 

এদিকে, প্রতিদিন শত শত  বৌদ্ধ পূর্নাথী ও দর্শনার্থী এই বৌদ্ধ বিহার দেখার জন্য দুর দুরান্ত থেকে ছুটে আসেন। প্রতি বছর প্রবারনা পুর্ণিমা ও বাংলা বর্ষ বিদায় এবং নববর্ষের আগমন উপলক্ষে ”সাংগ্রাই উৎসব” তিনদিন ব্যাপী পালিত হয়। উৎসব চলাকালীন এখানে মেলা, যাত্রা, নাটক সহ নানা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। ৱ

 

লাখো বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী ছাড়াও পাহাড়ী-বাঙ্গালী ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে প্রচুর জণসমাগম ঘটে এ চিৎমরম বৌদ্ধ বিহার প্রাঙ্গনে। এছাড়া বর্ষ বিদায় ও বর্ষ বরনের এ উৎসবকে স্বাগত জানাতে প্রতি বছর চিৎমরম বৌদ্ধ বিহারে দেশের বহু খ্যাতিমান ব্যক্তিরও আগমন ঘটে। এ সময় অনেক কবি, সাহিত্যিক, দার্শনিক, সাংবাদিকসহ প্রচুর বিদেশীও বর্ষ বরন অনুষ্ঠানটি দেখার জন্য ছুটে আসেন কাপ্তাইয়ে।

 

প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য মন্ডিত এই বৌদ্ধ বিহার এলাকা ঘিরে পর্যটন শিল্পের ব্যাপক সম্ভাবনা থাকলেও সরকারী উদ্যোগ ও পৃষ্ঠপোষকতা পেলে চিৎমরম সহ কাপ্তাই হতে পারে পর্যটন শিল্পের  এক সম্ভাবনাময় নগরী।

--হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

আর্কাইভ