কাপ্তাইয়ের শত বছরের বৌদ্ধদের তীর্থ স্থান চিৎমরম বৌদ্ধ বিহার

Published: 26 Jul 2016   Tuesday   

রাঙামাটির কাপ্তাইয়ের শত বছরের পুরনো বৌদ্ধদের তীর্থ স্থান হচ্ছে চিৎমরম বৌদ্ধ বিহার। কর্ণফুলীর নদীর তীরবর্তী এলাকায় মনোরম প্রাকৃতিক পরিবেশে গড়ে ওঠা সুপ্রাচীন বৌদ্ধ বিহারটি পাক-ভারত সহ উপ মহাদেশের ঐতিহ্যের স্বাক্ষ্য হয়ে দাঁড়িয়ে আছে। তবে এ বৌদ্ধ বিহারটি একদিকে বৌদ্ধদের তীর্থ স্থান অন্যদিকে পর্যটন শিল্প গড়ে ওঠার অপার সম্ভাবনা রয়েছে।

 

স্থানীয় সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, কাপ্তাইয়ের চিৎমরম ইউনিয়নের ইউপি সদস্য উমং চৌধুরীর পিতামহ চন্দ্র চৌধুরী ১৯০৫ সালে প্রথম বৌদ্ধ বিহারটি প্রতিষ্ঠা করেন। তবে ১৯২৭ সালে একজন বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী বর্মী নাগরিক চিৎমরম এলাকায় এসে বসবাস করতে থাকেন। ওই ব্যক্তি নিজ অর্থ ব্যয় করে তখন র্বামা থেকে কাঠসহ বিভিন্ন নির্মাণ সামগ্রী ও নির্মাণ শিল্পী এনে নানা কারুকার্য্যরে সমন্বয় ঘটিয়ে বৌদ্ধ বিহারের শৈল্পিক রুপ দেন।

 

এভাবেই ঐতিহ্যবাহী বৌদ্ধ বিহারটি পুর্নতা লাভ করে। প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ঘেরা চিৎমরম এলাকায় গড়ে ওঠা সম্পুর্ন কাঠের তৈরি বৌদ্ধ বিহারটি দেখলে  চীনা সংস্কৃতির নিদর্শন বলে মনে হয়। ১৯৮৪ থেকে ১৯৯৮ সাল পর্যন্ত বৌদ্ধ বিহারের দায়ক-দায়িকারা স্বেচ্ছাশ্রমের মাধ্যমে নদীর তীরবর্তী এলাকা থেকে একটু দক্ষিনে নতুনভাবে শৈল্পিক ও নান্দনিক কারুকার্য মন্ডিত ইটের গাথুনি দিয়ে নতুন বৌদ্ধ বিহার নির্মাণ করেন।

 

সূত্র আরো জানায়, পুরনো এ বৌদ্ধ বিহারটিতে ১৯০৫ সাল থেকে ১৯৪০ সাল পর্যন্ত প্রতিষ্ঠাতা প্রধানের দায়িত্ব পালন করেন স্বর্গীয় ভিক্ষু উ পারাক্ষামা মহাথের। তার মৃত্যুর পর ১৯৪০ থেকে ১৯৯০ সাল পর্যন্ত বিহারের প্রধান দায়িত্ব পালন করেন উ পান্ডিত্য মহাথের। তার মৃত্যুর পর ১৯৯০ সাল থেকে চলতি দায়িত্বে নিয়োজিত রয়েছেন উ পান্ডিত্য মহাথেরর প্রধান শিষ্য উ পামোখা মহাথের।

 

এদিকে, প্রতিদিন শত শত  বৌদ্ধ পূর্নাথী ও দর্শনার্থী এই বৌদ্ধ বিহার দেখার জন্য দুর দুরান্ত থেকে ছুটে আসেন। প্রতি বছর প্রবারনা পুর্ণিমা ও বাংলা বর্ষ বিদায় এবং নববর্ষের আগমন উপলক্ষে ”সাংগ্রাই উৎসব” তিনদিন ব্যাপী পালিত হয়। উৎসব চলাকালীন এখানে মেলা, যাত্রা, নাটক সহ নানা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। ৱ

 

লাখো বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী ছাড়াও পাহাড়ী-বাঙ্গালী ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে প্রচুর জণসমাগম ঘটে এ চিৎমরম বৌদ্ধ বিহার প্রাঙ্গনে। এছাড়া বর্ষ বিদায় ও বর্ষ বরনের এ উৎসবকে স্বাগত জানাতে প্রতি বছর চিৎমরম বৌদ্ধ বিহারে দেশের বহু খ্যাতিমান ব্যক্তিরও আগমন ঘটে। এ সময় অনেক কবি, সাহিত্যিক, দার্শনিক, সাংবাদিকসহ প্রচুর বিদেশীও বর্ষ বরন অনুষ্ঠানটি দেখার জন্য ছুটে আসেন কাপ্তাইয়ে।

 

প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য মন্ডিত এই বৌদ্ধ বিহার এলাকা ঘিরে পর্যটন শিল্পের ব্যাপক সম্ভাবনা থাকলেও সরকারী উদ্যোগ ও পৃষ্ঠপোষকতা পেলে চিৎমরম সহ কাপ্তাই হতে পারে পর্যটন শিল্পের  এক সম্ভাবনাময় নগরী।

--হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

উপদেষ্টা সম্পাদক : সুনীল কান্তি দে
সম্পাদক : দিশারি চাকমা
মোহাম্মদীয়া মার্কেট
কাটা পাহাড় লেন, বনরুপা
রাঙামাটি পার্বত্য জেলা।
ইমেইল : info@hillbd24.com
সকল স্বত্ব hillbd24.com কর্তৃক সংরক্ষিত