• Hillbd newsletter page
  • Hillbd rss page
  • Hillbd twitter page
  • Hillbd facebook page
সর্বশেষ
বান্দরবানে মগ পার্টির দেয়া আগুনে পুড়ল বসতঘর                    রাঙামাটির তবলছড়ি শ্রী শ্রী রক্ষাকালী মন্দির পরিচালনা কমিটির অভিষেক ও শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠিত                    খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ সমীর দত্ত চাকমাকে দল থেকে বহিস্কারের দাবী                    খাগড়াছড়িতে ঘরোয়া পরিবেশে ইংরেজী দেওয়ালিকা প্রকাশ                    নানিয়ারচর সেনা জোনের উদ্যোগে মুক্তিযোদ্ধার পরিবারদের সম্মাননা প্রদান                    কাপ্তাইয়ের রাইখালীর হাপছড়িতে আবারও সন্ত্রাসী হামলায় আহত ১০                    রাঙামাটিতে প্রথমবারের মতো কার্টুন ও কমিক্স ওয়ার্কশপ অনুষ্ঠিত                    রাঙামাটিতে আগুনে পুড়লো ৫ বসতঘর                    রাঙামাটিতে দিন ব্যাপী কৈশোর কর্মশালার আয়োজন                    জুম ফুল থিয়েটারের পঞ্চম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন                    জুরাছড়িতে ডেইরী খামারীদের দিন ব্যাপী প্রশিক্ষণ                    পার্বত্য চুক্তির ২২বছর পূর্তি উপলক্ষে খাগড়াছড়িতে তিন দিনের বর্ণিল আয়োজন                    কাপ্তাইয়ে ওয়ারেন্ট ভুক্ত আসামী আটক                    রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের নব নির্মিত এনেক্স ভবনের উদ্বোধন                    রাজস্থলীতে গুলিতে নিহত ৩ ব্যক্তির লাশ ময়নাতদন্তের পর বেওয়ারিশ হিসেবে সৎকার                    আর্দশ একুশে- রনতুর্য সাতের জোন কমান্ডারের বিদায় বরণ সভা                    রাজস্থলীতে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় ৩ ব্যক্তির লাশ উদ্ধার                    রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের মাসিক সভা অনুষ্ঠিত                    ঘাতক ট্রাক চালককে গ্রেফতারের দাবিতে রাঙামাটি সরকারী কলেজ শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন                    অচাই পাড়া বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অভিভাবক সমাবেশ অনুষ্ঠিত                    রাঙামাটির ঘাগড়ায় ট্রাক-সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ১, আহত ৪                    
 

আলীকদমে একটি সিন্ডিকেট অবৈধভাবে পাথর উত্তোলন ও বনাঞ্চল উজাড়ের অভিযোগ

Published: 22 Jan 2016   Friday

বান্দরবানের আলীকদম উপজেলার চৈক্ষ্যং ইউনিয়নের রেপারপাড়ি বাজারের পশ্চিমপাশে ডপ্রুপাড়ার আশপাশ থেকে অবৈধভাবে একটি শক্তিশালী সিন্ডিকেট পাথর উত্তোলন ও ব্যাপক বনাঞ্চল উজাড় করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এতে পরিবেশ বিপর্যয়ের আশংকা করছেন পরিবেশবাদীরা।

 

এদিকে,  পাথর আহরণ ও পরিবহন করে থাকে তা হলে তা সর্ম্পূন্ন অবৈধ উল্লেখ করে আইন অমান্যকারীদের আইনের আওতায় আনার নির্দেশ দেয়া হবে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

 

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, আলীকদমের চৈক্ষ্যং রেপারপাড়া বাজার থেকে মসজিদের পাশ দিয়ে আধা কিলোমিটার পর থেকে পশ্চিমদিকে ডপ্রুপাড়া, হরিণঝিরির আগা ও পাইকঝিরি পর্যন্ত অবৈধ পাথর উত্তোলন ও বনাঞ্চল উজাড়ে শতাধিক পাহাড় কেটে প্রায় ৩কিলোমিটার রাস্তা করেছে ব্যবসায়ীরা। প্রতিদিন ১০ থেকে ১৫টি ট্রাক, ৮ থেকে ১০টি পিকআপ এই পথদিয়ে শতাধিকবার পাথর, লাকড়ি ও গাছ বহন করে নিয়ে যায়। অতিমাত্রায় পরিবহনের কারণে সরকারী ব্যয়ে নির্মিত রাস্তা ও কালভাট গুলো নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

 

ডপ্রু পাড়ার কারবারী হ্লাথোয়াই  ম্রো ও স্থানীয় ছাচিং ম্রো জানান, ডপ্রু পাড়া, হরিণঝিরি ও পাইকঝিরির সহজ সরল ম্রো জনগোষ্ঠীকে উপেক্ষা করে তাদের নিজস্ব ও দখলীয় জায়গা থেকে গাছ, বাশঁ ও পাথর আহরণ করছে মাংথাই হেডম্যান পাড়া সরকারী বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মিনহাজ উদ্দিন রুকন মাষ্টার ও বনফুল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আশীষ কুমার দত্ত। কোন প্রকার মূল্য পরিশোধ না করে তাদের দখলীয় ও রক্ষণাবেক্ষণ করা বাগান কেটে নিয়ে যাচ্ছে।

 

তিনি অভিযোগ করে অারও জানান, সংশ্লিষ্ট বিভাগের কতিপয় দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সহায়তায় কিছু অসাধু ব্যবসায়ী অতিমাত্রায় পাহাড় কেটে ও মাটি খুঁড়ে পাথর আহরণ করায় পরিবেশ ও জীববৈচিত্র্যের ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে। পাশাপাশি অত্র অঞ্চলে মানুষের বসবাসের অযোগ্য হয়ে পড়ছে।

 

ঝিরি ও পাহাড় খূঁড়ে পাথর উত্তোলনের ফলে এলাকায় দেখা দিয়েছে চরম পানির অভাব। শুষ্ক মৌসুম আসতেই নলকুপ ও রিংওয়েলে পানি উঠা বন্ধ হয়ে যায়। পাথর পাচার ও বন উজাড় দেখেও প্রশাসন না দেখার ভান করছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

 

পাথর আহরণ ও গাছ, লাকড়ি পরিবহনের কথা সত্যতা স্বীকার করে স্কুল শিক্ষক মিনহাজ উদ্দিন রুকন মাষ্টার জানান,  উক্ত জায়গা সাঙ্গু মৌজার হেডম্যান থংপ্রে ম্রো থেকে চুক্তি ভিত্তিক লিজ  নেয়া হয়েছে।  জায়গা ও বাগান মালিককে টাকা দিয়ে গাছ, লাকড়ি ও পাথর আহরণ করা হচ্ছে। 

 

সাঙ্গু মৌজার হেডম্যান থংপ্রে ম্রো জানান,তিনি হরিণঝিরি ও পাইকঝিরির কোন জায়গা কাউকে গাছ ও পাথর আহরণের জন্য লিজ দেননি। রুকন মাষ্টার তাকে বলেছেন ডপ্রু পাড়ার লোকজন থেকে লিজ নিয়েছে আর ডপ্রু পাড়াবাসিকে তার কথা বলছে। মূলত তারা মিথ্যাচার করছে তার দাবী। 

 

তিনি অভিযোগ করে আরও বলেন, ডপ্রু পাড়ার আশপাশের জায়গা বন বিভাগের রিজার্ভ এলাকা। বন বিভাগের জায়গা থেকে গাছ, লাকড়ি ও পাথর আহরণ করলেও তারা কেন কিছু বলছে না।

 

এ ব্যাপারে লামা বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম চেীধুরী বলেন, পাথরের পারমিট অনুমতি দেন জেলা প্রশাসক। তাদেরকে কোন অনুলিপি দেয়া হয় না। যার কারনে কোথায় পারমিট ইস্যু হল তা  তিনি জানেন না।

 

তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে আর বলেন, পাহাড় খূঁড়ে পাথর উত্তোলন বন্ধ না হলে অচিরেই এ এলাকা পরিবেশ বিপর্যয়ের মূখে পড়বে। বৈধ কাগজপত্র ছাড়া কোন প্রকার গাছের গাড়ি যেতে পারবে না।

 

আলীকদম উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আল আমিন বলেন, বান্দরবান জেলা প্রশাসন থেকে বর্তমানে কোন পাথরের পারমিট দেয়া হয়নি। যে সব পারমিট ব্যবসায়ীদের কাছে রয়েছে তার কোনটারী মেয়াদ নেই। কেউ যদি পাথর আহরণ ও পরিবহন করে থাকে তা হলে তা সর্ম্পূন্ন অবৈধ।

 

তাছাড়া পাহাড় খুঁড়ে পাথর আহরণের কোন অনুমতি কখনও দেয়া হয়নি। কেউ যদি তা করে থাকে তাদের কে আইনের আওতায় আনার জন্য  নির্দেশ দেয়া হয়েছে জানান তিনি। 

--হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

আর্কাইভ