• Hillbd newsletter page
  • Hillbd rss page
  • Hillbd twitter page
  • Hillbd facebook page
সর্বশেষ
সামাজিক দুরত্ব রক্ষার্থে ত্রান নিয়ে জনগণের দোরগোড়ায় কাপ্তাই ইউএনও                    করোনা ভাইরাস জনিত জুরাছড়িতে কর্মহীনদের বাড়ীতে খাবার পৌছে দিল ইউএনও ও জনপ্রতিনিধিরা                    সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে শহরের প্রধান সড়কে ঔষুধ মিশ্রিত পানি ছিটানো ও গরীদের শুকনো খাবার বিতরণ                    করোনা সচেতনতায় রাঙামাটি শহরের জেলা প্রশাসন, পুলিশ ও সেনাবাহিনীর টহল অব্যাহত                    কাপ্তাইয়ে অসহায় মানুষের মাঝে কাপ্তাই নৌ বাহিনীর ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ                    বাঘাইছড়িতে গুচ্ছ গ্রাম এলাকায় করোনা ভাইসরাস সন্দেহে ১২টি বাড়ীকে লক ডাউনের ঘোষনা                    রাঙামাটি শহরের বিভিন্ন এলাকায় হ্যান্ড স্যানিটাইজেশন বিতরণ ও বেসিন স্থাপন                    করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে রাঙামাটির শহরে মোবাইল কোর্টের অভিযান অব্যাহত                    করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে রাঙামাটিতে আ’লীগসহ অংগ সংগঠনের সচেতনতামূলক কর্মকান্ড                    করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে বরকল সদরে জীবাণু নাশক স্প্রে                    করোনাভাইরাস প্রতিরোধে বলাকা ক্লাবের স্প্রে, মাস্ক ও লিফলেট বিতরণ                    করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে খাগড়াছড়িতে দোকানপাট বন্ধ ও রাস্তাঘাট ফাঁকা                    স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে কাপ্তাইয়ে পুষ্পঅর্পণ ও জাতীয় পতাকা উত্তোলন                    করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে রাঙামাটি শহরের রাস্তা ফাকা                    করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে তরুনদের উদ্যোগ                    রাঙামাটিতে সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে হোম কোয়ারেন্টাইনদের খাদ্য সামগ্রি বক্স বিতরণ                    শহীদ মিনারে রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদদের পুস্প স্তবক অপর্ণ                    করোনাপ্রতিরোধে রাঙামাটিতেস্বপ্নবুনন ৫শ হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও ১হাজার মাস্কবিতরণকরেছে                    করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে রাঙামাটিতে স্বপ্নবুননের ব্যতিক্রমধর্মী উদ্যোগ                    করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জীবন ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছেন বরকল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা                    খাগড়াছড়িতে আইসোলেশনে থাকা রোগীর মৃত্যু, হোম কোয়ারেন্টাইনে ৪                    
 

পার্বত্য চট্টগ্রাম পর্যটন সমস্যা ও সম্ভাবনা শীর্ষক পর্যালোচনা সভায়
পার্বত্যাঞ্চলকে মডেল পর্যটন জোনে পরিণত করা হবে-নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা

স্টাফ রিপোর্টার : হিলবিডি টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published: 16 Jan 2016   Saturday

শীঘ্রই পার্বত্যাঞ্চলকে মডেল পর্যটন জোনে পরিনত হবে বলে মন্তব্য করেছেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা।

 

অপার সম্ভাবনাময় এ অঞ্চলের ঐতিহ্য, সংস্কৃতি সৌন্দর্য্যর দিকে পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে ইতোমধ্যে নানা উদযোগ গ্রহণ করেছে মন্ত্রণালয়। এ বিষয়ে বিভিন্ন পরিকল্পনাও গ্রহণ করা হয়েছে। আর তা খুব দ্রুত বাস্তবায়ন করা হবে। বিশেষ করে পার্বত্য চট্টগ্রাম পর্যটন সেক্টরগুলোতে নতুন পরিকল্পনা যোগ করা হচ্ছে। নতুন নতুন জায়গায় পর্যটন স্পট গড়ে তোলা হবে। তার জন্য প্রয়োজন পর্যটন সেক্টরে সম্পক্তি সকলে সহযোগিতা।

 

তিনি পার্বত্য চট্টগ্রামকে একটি মডেল পর্যটন জোন হিসেবে গড়ে তোলার জন্য শান্তি-সম্প্রীতি বজায় রেখে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার জানান।


শনিবার পার্বত্য চট্টগ্রাম পর্যটন সমস্যা ও সম্ভাবনা শীর্ষক পর্যালোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।


রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা। এসময় উপস্থিত ছিলেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. সামসুজ্জামান, অতিরিক্তি জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. মোস্তাফা জামান, জেলা পুলিশ সুপার মো. সাঈদ তরিকুল হাসান, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উপদেষ্ঠা সংসদীয় কমিটির সদস্য মো. শাহাজাহান মোল্লা, জেলা পরিষদের মূখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম জাকির হোসেন চৌধূরীসহ পরিষদের সদস্য, হোটেল মালিক সমিতি ও সাংবাদিকরা।


পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা আরও বলেন, পার্বত্যাঞ্চলে বিপুল সম্ভাবনা সুযোগ থাকলেও পর্যটন শিল্প কাংখিত অগ্রগতি অর্জন করতে পারেনি। এ অঞ্চলে পর্যটন শিল্প এখনো আলোর মূখ দেখতে পারেনি। কিন্তু পর্যটন সম্ভাবনাকে পরিকল্পীতভাবে কাজে লাগানো গেলে পার্বত্যাঞ্চলের মানুষের জন্য বিপুল কর্মসংস্থানের সুযোগ যেমন বাড়বে, তেমনি আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন বৃদ্ধি পাবে।


তিনি বলেন, রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ মধ্যেমে পর্যটন উন্নয়নে যেসব সমস্যা রয়েছে তা চিহ্নিত করা হচ্ছে। এসব সমস্যগুলো থেকে উত্তোরন হওয়া যায় তার উপার ও ভবিষ্যত পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। পার্বত্যাঞ্চলের পর্যটন সেক্টরকে মাস্টার প্লানে মধ্যেমে উন্নয়নের করা হবে।

 

সভাপতির বক্তব্যে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বলেন, সকলের পরামর্শ ও পার্বত্য মন্ত্রনালয় সহযোগিতা এ জেলার পর্যটন শিল্পের উন্নয়নে জেলা পরিষদ সবসময় কাজ করবে। তিনি বলেন, পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে জেলা পরিষদের কৃষি প্রকল্পের মাধ্যমে শুভলং ঝর্ণার পানির উৎপন্ন স্থানগুলোর আরো উন্নয়ন করা হবে। যাতে করে ঝর্ণার পানির স্রোত বৃদ্ধি পায়।
--হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

আর্কাইভ