• Hillbd newsletter page
  • Hillbd rss page
  • Hillbd twitter page
  • Hillbd facebook page
সর্বশেষ
কিরণের পক্ষ থেকে রাঙামাটি সিভিল সার্জন কার্যালয়কে ৩শ পিস ব্যক্তিগত সুরক্ষা সামগ্রী প্রদান                    বর্মা হত্যর মামলার আসামী পুলক জ্যোতি চাকমা খাগড়াছড়ি কারাগারে মৃত্যু                    সুবলং ইউনিয়নে বরাদ্দকৃত চাল ওয়ার্ডে মেম্বারদের হাতে বিতরণ                    কাপ্তাইয়ে নৌ-বাহিনীর সদস্য ও স্বাস্থ্যকর্মীসহ আরো ৭ জন করোনায় আক্রান্ত                    মস্তিষ্কের রক্তক্ষরণ জনিত কারণে বিলাইছড়ি উপজেলা প্রকৌশলীর মৃত্যু                    রাঙামাটিতে করোনায় নতুন করে আরো ৭ জনের পজিটিভ,মোট আক্রান্ত ৬৮ জন                    কাপ্তাইয়ে করোনা উপসর্গ নিয়ে এক মারমা যুবকের মৃত্যু                    রাঙামাটিতে করোনা উপসর্গে এক জনের মৃত্যু, নতুন করে আরো ৩জনসহ মোট আক্রান্ত ৬১ জন                    মহালছড়ির মাইসছড়ি ও ক্যায়াংঘাট ইউপিতে উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা                    চকরিয়ায় এক কিশোরিকে ধর্ষনের অভিযোগ ছাত্রলীগের এক নেতার বিরুদ্ধে                    জুরাছড়িতে সেনা বাহিনীর পক্ষ থেকে দুস্থদের মাঝে সহায়তা প্রদান                    আবারও শ্রেষ্ঠত্ব ধরে রাখলো কাপ্তাই নৌ-বাহিনী স্কুল এন্ড কলেজ                    রাঙামাটিতে এসএসসিতে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৬৪ জন                    সোমবার থেকে রাঙামাটিতে সীমিত আঁকারে চালু হচ্ছে বাস ও লঞ্চ                    রাঙামাটিতে করোনায় প্লাজমা ডোনেট সেল গঠন করেছে স্বপ্নবুনন                    করোনা ভাইরাসের মধ্যে আরেকটি অবৈধ অস্ত্র ভাইরাসের আমরা আক্রান্ত-দীপংকর তালুকদার এমপি                    রাঙামাটির সাপছড়িতে ২৬ পরিবারকে ত্রাণ দিয়েছে কয়েক তরুণ উদ্যোক্তা                    বাঘাইহাটের প্রত্যন্ত এলাকায় খাগড়াছড়ি সেনা রিজিয়নের খাদ্য সহায়তা প্রদান                    খাগড়াছড়িতে রাজনীতিক খোকনেশ্বর ত্রিপুরা’র মাতৃ বিয়োগে বিভিন্ন মহলের শোক                    রাঙামাটির বন্দুকভাঙ্গায় ৫০ পরিবারকে ত্রাণ দিয়েছে হিলর ভালেদী                    কাপ্তাইয়ে এক আনসার সদস্যের করোনা পজিটিভ                    
 

বান্দরবানে মগ পার্টির দেয়া আগুনে পুড়ল বসতঘর

স্টাফ রিপোর্টার,বান্দরবান : হিলবিডি টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published: 22 Nov 2019   Friday

বান্দরবান সদর উপজেলা কুহালং ইউনিয়নের নতুন কাট্টলী চাকমা পাড়ায় গেল বৃহস্পতিবার রাতে একদল অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী হামলা চালিয়েছে।

 

সন্ত্রাসীদের দেয়া আগুনে একটি বসতঘর সম্পূর্ণ পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। গেল বৃহস্পতিবার রাত নয়টার দিকে এ হামলার ঘটনা ঘটে। প্রশাসন এখনো নিশ্চিত হতে পারেনি কারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে। এ ঘটনার পর শুক্রবার সকাল এগারটার দিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন সেনাবাহিনী, পুলিশ ও স্থানীয় ইউপি সদস্য, মৌজা প্রধান হেডম্যান।

 

এদিকে  নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পাড়াবাসি ও কয়েকজন এলাকার নেতা জানিয়েছেন এই হামলার পেছনে মগ পার্টির সদস্যদের হাত রয়েছে। এই ঘটনার আগেও এলাকায় আরো কয়েকটি ঘটনা ঘটিয়েছে মগ পার্টির সদস্যরা।  

 

নতুন কাট্টলী চাকমা পাড়ার কার্বারী (পাড়া প্রধান) ধরাজচন্দ্র চাকমা বলেন, তখন রাত প্রায় নয়টার কাছাকাছি।রাতে ভাত খাওয়ার পর শুয়ে পড়ছিলাম। এমন সময় আমার কুকুরটি ঘেউ ঘেউ করছিল। রাতে গ্রামে অপরিচিত কেউ প্রবেশ করলে কুকুর ঘেউ কেউ করলে বুঝতে পারি। ঘরের বাইরে উকি দিয়ে দেখি হাফ প্যান্ট পরা দুইজন লোক। তাদের টর্চ লাইটের আলোতে তাদের পোশাক সেনাবাহিনীর পোশাকের মতো দেখেছিলাম। হঠাৎ গুলির শব্দ শুনি। এরপর আরো কয়েকটি গুলির শব্দ শুনি। ভয়ে ঘর থেকে স্ত্রীসহ লাফ দিয়ে জঙ্গলে প্রবেশ করি। গুলি করার কিছুক্ষন পরে জঙ্গল থেকে তাকিয়ে দেখি আগুনের পুড়ছে আমাদের বসতবাড়ি। কারা তাদের বসতবাড়িতে আগুনে দিয়েছে এবং কারা ফায়ার করেছে বুঝতে পারিনি। এমনকি হামলাকারীরা কতজন ছিল তাও দেখিনি।

 

সরজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, শহর থেকে আট কিলোমিটার দূরত্বসদর উপজেলা কুহালং ইউনিয়নের নতুন কাট্টলী চাকমা পাড়া বা গ্রামটি। গ্রামে আট পরিবারের বসবাস। বৃহস্পতিবার রাত নয়টার দিকে একদল সন্ত্রাসী গ্রামে প্রবেশ করে। দলে কতজন সদস্য, আঞ্চলিক কোনো সংগঠনের সদস্য কিনা তাও জানাতে পারেনি পাড়াবাসিরা। ওই সময়ে গ্রামের বেশির ভাগ লোক রাতের খাবার খেয়ে ঘুমিয়ে পড়ছিল। এমন সময় গুলি আওয়াজে ভয়ে যে যার মতো করে রাতে অন্ধকারে জঙ্গলে পালিয়ে আশ্রয় নেয় পাড়াবাসিরা। গ্রামবাসিদের না পেয়ে হামলাকারীরা জ্ঞানলাল চাকমার বাড়িতে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়। বসতবাড়িটি আগুনে সম্পূর্ণ পুড়ে গেছে।

 

একাধিক সূত্রে জানা গেছে, মায়ানমারের একটি বিচ্ছিন্নতা গ্রুপ আরাকান লিবারেশন পার্টি (এএলপি)। এই পার্টির কতিপয় সদস্য দলছুট হয়ে বান্দরবানে প্রবেশ করে। তারা স্থানীয় মারমা বা মগ সম্প্রদায়ের লোকদের দলে অর্ন্তভুক্ত করে। দলে মারমা বা মগ সম্প্রদায়ের লোকজন অর্ন্তভুক্ত হওয়াতে স্থানীয়ভাবে লোকেদের কাছে মগ পার্টি নামে অধিক পরিচিত। এই মগ পার্টির সদস্যরা বান্দরবান জেলার সদর উপজেলার সদর, কুহালং, রাজবিলা ইউনিয়ন, রোয়াংছড়ি উপজেলার নোয়াপতং ও আলেক্ষ্যং ইউনিয়ন নিজেদের নিয়ন্ত্রণে রেখেছে। এমনকি রাঙ্গামাটি জেলার রাজস্থলী উপজেলাও মগ পার্টি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। এই মগ পার্টির সদস্যরাই গেল বৃহস্পতিবার রাতে জেলার কুহালং ইউনিয়নের নতুন কাট্টলী চাকমা পাড়ায় গুলি চালিয়েছে ও একটি ঘর আগুনে পুড়িয়ে দিয়েছে। চলতি মাসের  গেল ১৯ নভেম্বর রাঙামাটির রাজস্থলী উপজেলার গাউন্দ্যা ইউনিয়নের বালুমুড়া এলাকায় তিনজন নিরীহ পাহাড়ির লাশ পাওয়া যায়। তিনজন পাহাড়িকে হত্যার পেছনে পার্বত্য চট্টগ্রামের আঞ্চলিক সংগঠন পিসিজেএসএস (পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি) এক প্রেস বার্তায় স্থানীয় মগ পার্টিকে দায়ী করেছে।

 

এ ব্যাপারে সদর থানা ওসি শহিদুল ইসলাম চৌধুরী জানান, কারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে তা এখনও স্পষ্ট নয়। এই বিষয়ে তদন্ত করে বের করা হবে। আগুনে একটি বসতবাড়ি পুড়ে গেছে। তবে এ ঘটনায় কেউ হতাহত হয়নি।

--হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

আর্কাইভ