রাঙামাটিতে সেনাবাহিনীর সাথে ইউপিডিএফের গুলিবিনময়, নিহত ১, অস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার

Published: 26 Feb 2020   Wednesday   

রাঙামাটিতে সেনাবাহিনীর সাথে ইউপিডিএফের মধ্যে বন্দুক যুদ্ধের ঘটনায় বাবুছ চাকমা ওরফে অর্পণ(৩১) নামের এক ইউপিডিএফ সদস্য নিহত হয়েছে। এসময় ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশী পিস্তলসহ ২টি অস্ত্র, গুলি ও অন্যান্য সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে। বুধবার ভোর ৫টার দিকে সদর উপজেলাধীন বন্দুকভাঙ্গা ইউনিয়নের সাহজবান্দা এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে।


পুলিশ ও স্থাণীয় সুত্রে জানা গেছে, শুভলং ক্যাম্প থেকে সেনাবাহিনীর একটি নিয়মিত টহল দল বুধবার ভোর ৫টার দিকে রাঙামাটি সদর উপজেলার বন্দুকভাঙ্গা ইউনিয়নের সাহজবান্দা এলাকায় যায়। এসময় ওপেতে থাকা একদল সন্ত্রাসীরা সেনাবাহিনীকে লক্ষ্যে করে এলোপাতাড়ি গুলি বর্ষন করতে থাকে। এতে সেনাবাহিনীও আত্নরক্ষার্থে পাল্টা গুলি বর্ষন করে। তবে বিষয়টি টহল দলের কমান্ডার শুভলং ক্যাম্পে অবহিত করলে কিছুক্ষনের মধ্যে স্পিড বোটে শুভলং থেকে সেনাবাহিনীর অপর একটিটহল দল ঘটনাস্থলে যায়। এতে উভয় পক্ষের মধ্যে ১৫ থেকে ২০ মিনিট গোলাগুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটে। এক পর্যায়ে সন্ত্রাসীরা পিছু হটতে বাধ্য হয়। পরে এলাকাটি সেনাবাহিনী তল্লাশির এক পর্যায়ে বাবুছ চাকমা ওরফে অর্পণ নামের ইউপিডিএফের এক কর্মী লাশ উদ্ধার করে। এসময় তার কাছ থেকে ১টি দেশীয় তৈরী অস্ত্র, ১টি বিদেশী পিস্তল, ৫টি তাজাগুলি, এলজির কার্তুজ, ৩টি গুলির খোসা, ব্যাগ,কাপড়চোপড়সহ অন্যান্য সরঞ্জামাদি উদ্ধার কর হয়। পুলিশকে খবর দেওয়ার পর নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতন্তের জন্য রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।


সূত্র মতে,নিহত অপর্ন ও তার সহযোগিরা গেল তিন থেকে চার মাস ধরে বন্দুকভাঙ্গা এলাকায় নিয়মিতভাবে স্থানীয় জনগণের কাছ থেকে চাঁদা উত্তোলন করে আসছিল। এর আগে গেল ১৯ ফেব্রুয়ারী একই এলাকায় এলাকায় আধিপত্যবিস্তারকে কেন্দ্র করে অর্ন্তদলীয় কোন্দলের জের ধরে সুমন চাকমা নামের এক ইউপিডিএফ কর্মী নিহত হয়। ২০১৮ সালের ৩ মে নানিয়ারচর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শক্তিমান চাকমা হত্যাকান্ডের এজাহারভূক্ত অন্যতম একজন আসামী নিহত অর্পণ।


রাঙামাটি কতোয়ালী থানার উপ-পরিদর্শক আল-আমিন সত্যতা স্বীকার করে বলেন, খবর পেয়ে তিনিসহ একদল পুলিশ ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থল থেকে অর্পন চাকমার নামের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্দের জন্য রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছি। নিহতের শরীরের বিভিন্ন স্থানে চারটি গুলির চিহৃ রয়েছে। এছাড়া ঘটনাস্থল থেকে ১টি দেশীয় অস্ত্র, ১টি বিদেশী পিস্তল, তাজাগুলি, এলজির কার্তুজ, ব্যাগসহ অন্যান্য সরঞ্জামাদি উদ্ধার করা হয়েছে।
--হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

উপদেষ্টা সম্পাদক : সুনীল কান্তি দে
সম্পাদক : দিশারি চাকমা
মোহাম্মদীয়া মার্কেট
কাটা পাহাড় লেন, বনরুপা
রাঙামাটি পার্বত্য জেলা।
ইমেইল : info@hillbd24.com
সকল স্বত্ব hillbd24.com কর্তৃক সংরক্ষিত