আসামবস্তী বুদ্ধাংকুর বৌদ্ধ বিহারে কঠিন চীবর দানোৎসব অনুষ্ঠিত

Published: 14 Oct 2019   Monday   

রাঙামাটি শহরের আসামবস্তী বুদ্ধাংকুর বৌদ্ধ বিহারে সোমবার দানোত্তম কঠিন চীবর দানোৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে।

 

বুদ্ধাংকুর বৌদ্ধ বিহার ও রাঙ্গামাটি বড়ুয়া জনকল্যাণ সংস্থার উদ্যোগে ২০তম দানোত্তম কঠিন চীবর দানোৎসব উপলক্ষে বুদ্ধাংকুর বৌদ্ধ বিহার প্রাঙ্গনে ধর্মসভায় পূর্ণার্থীদের উদ্দেশ্যে প্রধান ধর্মদেশনা প্রদান করেন পশ্চিম গহিরা শান্তিধাম বৌদ্ধ বিহার অধ্যক্ষ, ভদন্ত মৈত্রীপ্রিয় মহাথেরো। উপলক্ষে আয়োজিত ধর্মসভায় পূর্ণার্থীদের উদ্দেশ্যে প্রধান ধর্মদেশনা প্রদান করেন পশ্চিম গহিরা শান্তিধাম বৌদ্ধ বিহার অধ্যক্ষ, ভদন্ত মৈত্রীপ্রিয় মহাথেরো।


পার্বত্য ভিক্ষু সংঘ, বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ও সংঘরাম বৌদ্ধ বিহার অধ্যক্ষ ভদন্ত শ্রদ্ধালংকার মহাথেরোর সভাপতিত্বে ও বুদ্ধাংকুর বৌদ্ধ বিহার ও রাঙ্গামাটি বড়ুয়া জনকল্যাণ সংস্থার সাধারণ সম্পাদক উদয়ন বড়ুয়ার পরিচালনায় ধর্মসভায় উপস্থিত ছিলেন, সংঘরাম বৌদ্ধ বিহারে অধ্যক্ষ ধর্মর্কীতি মহাথেরো, ধর্মচক্র বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত পাঞাবংশ মহাথেরো, বুদ্ধাংকুর বৌদ্ধ বিহার ও রাঙামাটি বড়ুয়া জনকল্যাণ সংস্থার সভাপতি সুপ্রিয় বড়ুয়া, বুদ্ধাংকুর বৌদ্ধ বিহারের সহ সভাপতি ও বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা রণজিৎ কুমার বড়ুয়া প্রমুখ।


ধর্মীয় অনুষ্ঠানে পবিত্র মঙ্গলাচরণ পাঠ করেন, বুদ্ধাংকুর বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ করুনাপাল ভিক্ষু। অনুষ্ঠানে শত শত বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী নারী-পুরুষ অংশগ্রহণ করেন।


ধর্মীয় অনুষ্ঠানের মধ্যে ছিল, ভোরে পরিত্রাণ পাঠ, পুষ্পপূজা ও ভিক্ষুসংঘের প্রাতঃরাশ, জাতীয় পতাকা ও ধর্মীয় পতাকা উত্তোলন, বুদ্ধপূজা, শীলগ্রহন, সংঘদান ও ভিক্ষু সংঘের ধর্ম দেশনা, অনুত্তর পূণ্যক্ষেত্র ভিক্ষু সংঘকে পিন্ডদান। দুপুরে উদ্বোধনী সংগীত, দানোত্তম কঠিন চীবর দান অনুষ্ঠান, পূজনীয় ভিক্ষু সংঘের ধর্মোপদেশ ও সন্ধ্যায় ফানুস বাতি উত্তোলন।


ধর্মসভা ও পঞ্চশীল গ্রহনের পর চীবর দানের মাধ্যমে যে নির্বান অর্থাৎ মুক্তি সে মুক্তির অহিংসা বানী ছড়িয়ে যাক মানুষে মানুষে এবং সামনের দিনগুলোতে শান্তি ফিরে আসুক ধর্মপ্রাণ বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের এমনটার প্রার্থনার মধ্যে দিয়ে চীবর দানের সমাপ্তি ঘটে। আর বিকেলে অনুষ্ঠিত হয় প্রদ্বীপ প্রজ্জ্বলন ও ফানুস বাতি উত্তোলন।



সংঘদান ও ভিক্ষু সংঘের ধর্ম দেশনা, অনুত্তর পূণ্যক্ষেত্র ভিক্ষু সংঘকে পিন্ডদান, কঠিন চীবর দান।
উল্লেখ্য, বৌদ্ধ ভিক্ষুদের তিন মাস বর্ষাবাসের শেষ দিনে প্রবারণা পূর্নিমা শেষে দীর্ঘ একমাস ধরে বিভিন্ন বৌদ্ধ বিহারে চলে প্রধান ধর্মীয় অনুষ্ঠান কঠিন চীবর দানোৎসব।
-হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

উপদেষ্টা সম্পাদক : সুনীল কান্তি দে
সম্পাদক : দিশারি চাকমা
মোহাম্মদীয়া মার্কেট
কাটা পাহাড় লেন, বনরুপা
রাঙামাটি পার্বত্য জেলা।
ইমেইল : info@hillbd24.com
সকল স্বত্ব hillbd24.com কর্তৃক সংরক্ষিত