আগামী ৮মার্চ থেকে ৩দিন ব্যাপী ঐতিহ্যবাহী বোমাং রাজপূণ্যাহ শুরু হচ্ছে

Published: 20 Feb 2019   Wednesday   

আগামী ৮ই মার্চ থেকে  তিন দিন ব্যাপি বান্দরবানে বোমাং রাজার ঐতিহ্য রাজপূণ্যাহ মেলা।

 

মঙ্গলবার বোমাং রাজার কার্যালয়ে বোমাংগ্রী রাজা উ চ প্রু আনুষ্ঠানিকভাবে এক  সাংবাদিক সম্মেলনে এই মেলার তারিখ ঘোষনা করেন। সংবাদ সম্মেলনে রাজা ছাড়াও রাজকুমার সাশৈপ্রু, রাজকুমার চনুপ্রু, হেডম্যান (মৌজার প্রধান) এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক রাজকুমার টি মং প্রুসহ রাজ পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

 

উল্লেখ্য, এই মেলাটি মূলত রাজার খাজনা আদায়কে কেন্দ্র করে উৎসব পালিত হয়। খাজনা আদায়ের উৎসবটি বান্দরবান জেলার ঐতিয্যের ধারক-বাহকও বলা যায়। আর এই ঐতিহ্যবাহী রাজপূণ্যাহ মেলাটি শুরু হচ্ছে তিনদিন ব্যাপি খাজনা আদায়ের পাশাপাশি অন্যান্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানও চলবে। 

 

সংবাদ সন্মেলনে বলা হয়, রাজার মাঠেই অনুষ্ঠিত মেলার এটি বোমাং সার্কেলের বোমাং রাজ পরিবারের ১৪১তম ঐতিহ্যবাহী রাজস্ব খাজনা আদায় উৎসব। এই রাজপূণ্যাহ মেলাটি বর্তমান ১৭তম রাজা উ চ প্রু’র পঞ্চমতম খাজনা আদায়ের মেলা।

 

সাংবাদিক সম্মেলনে বোমাং রাজা উ চ প্রু বলেন,মেলায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন কৃষি মন্ত্রী ড: আব্দুর রাজ্জাক, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপিসহ দেশী-বিদেশি অতিথিরা।

 

রাজপুণ্যাহ উপলক্ষে যাত্রা, পুতুল নাচ, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ থাকবে নানান আয়োজন। মেলা উপলক্ষে পার্বত্য জেলার বিভিন্ন দুর্গম পাহাড়ের অধিবাসীরা রাজাকে প্রদান করবেন রাজকীয় উপহার সামগ্রী ও বাৎসরিক খাজনা।

 

প্রসঙ্গত, ১৮৭৬ সাল থেকে বান্দরবানে এই রাজপূণ্যাহ (ঐতিহ্যবাহী রাজস্ব খাজনা আদায় উৎসব) হয়ে আসছে। ১০৯টি মৌজার জুম খাজনা আদায়ের এই মহোৎসবটি রাজপূণ্যাহ নামে পরিচিতি লাভ করে। প্রতিবছর এই মেলাকে ঘিরে স্থানীয় আদিবাসী ও বাঙ্গালীদের পাশাপাশি পর্যটকদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠে পুরো জেলা।

--হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

উপদেষ্টা সম্পাদক : সুনীল কান্তি দে
সম্পাদক : দিশারি চাকমা
মোহাম্মদীয়া মার্কেট
কাটা পাহাড় লেন, বনরুপা
রাঙামাটি পার্বত্য জেলা।
ইমেইল : info@hillbd24.com
সকল স্বত্ব hillbd24.com কর্তৃক সংরক্ষিত