দীর্ঘ অপেক্ষার পালা শেষ,রাত পোহালেই ভোট

Published: 29 Dec 2018   Saturday   

দীর্ঘ অপেক্ষার পালা শেষ,শনিবার রাত পোহালেই আসবে সেই মাহেন্দ্রক্ষণ। রোববার সারাদেশের ন্যায় পার্বত্য রাঙামাটি ২৯৯নং আসনে অনুষ্ঠিত হবে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোট গ্রহণ। এবার এ আসন থেকে ৬ জন প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। ভোটাররা আশা করছেন শান্তিপূর্ন, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

 

এবার রাঙামাটি আসন থেকে ৬ন প্রতিদ্বন্ধি প্রার্থী মধ্যে রয়েছেন আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী দীপংকর তালুকদার (নৌকা), বিএনপির প্রার্থী  মনিস্বপন দেওয়ান(ধানের শীষ), সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন পিসিজেএসএস’র সমর্থিত ও স্বতন্ত্র প্রার্থী উষাতন তালুকদার(সিংহ), জাতীয় পার্টির প্রার্থী পারভেজ তালুকদার(লাঙ্গল), বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়াকার্স পার্টির প্রার্থী জুই চাকমা(কোদাল), বাংলাদেশ ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী জসীম উদ্দীন তালুকদার(হাতপাখা)। এবারের মোট  সংখ্যা হচ্ছে ৪ লাখ   ১৮ হাজার ২১৭ (পুরুষ-২লাখ ২০হাজার ৩৫৪, মহিলা-১ লাখ ৯৭ হাজার ৮৬৩জন)।

 

রাঙামাটির ২৯৯নং আসনে নির্বাচনী কাজে নিয়োজিত থাকবে আইন শৃংঙ্খলাবাহিনী ও ভোট গ্রহনকারী মিলে প্রায় দশ হাজার জনবল। এর মধ্যে সেনা ,র‌্যাব,পুলিশ, বিজিবিও আনসার ৭ হাজার ১১০জনএবং প্রিজাইডিং অফিসার,সহ-প্রিজাইডিং অফিসার ও  পোলিং অফিসার ২হাজার ৮৮২জন।  ইতোমধ্যে সব ভোট কেন্দ্রে নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে। 

 

জেলা নির্বাচন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, আজ রোববার নির্বাচনী দিনে রাঙামাটির ২৯৯নং আসনে নির্বাচনী কাজে ব আইন শৃংঙ্খলাবাহিনী ও ভোট গ্রহনকারী মিলে প্রায় দশ হাজার জনবল নিয়োজিত থাকবে। এর মধ্যে সেনাবাহিনীর ১৫৩টি ষ্টেকিং ফোর্স নির্বাচনের দিন নিয়োজিত থাকবে এদের মধ্যে প্রতি টিমে ১০জন সেনা দায়িত্ব পালন করবেন। সেনা রিজার্ভ ষ্টেকিং ফোর্স ১৭টি প্রতি টিমে ২০জন করে থাকবে। র‌্যাব ২টি টিম থাকবে এক টিমে ৮জন করে র‌্যাব সদস্য থাকবেন। বিজিবি ৪৪টি প্লাটুন এক প্লাটুন সমান ২৫জন থাকবে। পুলিশের ১০টি টিম থাকবে ১টিমে ১০জন করে দায়িত্ব পালন করবেন। পুলিশের মোবাইল টিম ২৭টি এক টিমে ৫জন করে থাকবে। মোট আনসার ভিডিপি ২হাজার ৪৩৬জন।তাই ব্যাটালিয়ান আনসার প্রতি কেন্দ্রে ১২জন করে দায়িত্ব পালন করবেন।এছাড়াও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী ভিডিপি প্রতিটি কেন্দ্রে দায়িত্ব পালন করবেন।

 

পুলিশ সুপার আলমগীর কবির জানান,পুলিশ কর্মকর্তা ও পুলিশ সদস্য মিলে এ জেলায় প্রায় ২ হাজারের অধিক পুলিশ সদস্য নির্বাচনে দায়িত্ব পালন করবেন। তাই আশা করছি নির্বাচন অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষভাবে অনুষ্ঠিত হবে।

 

এদিকে, রাঙামাটি আসনে দশটি উপজেলার ২০৩টি ভোট কেন্দ্র রয়েছে। এর মধ্যে গুরুত্বপূর্ন হচ্ছে ১৩৬টি ও সাধারণ হচ্ছে ৬৭টি। সবকটি কেন্দ্রকে গুরুত্বপূর্ন হিসেবে বিবেচনা করা হয়েছে।

 

অপরদিকে সাধারন ভোটার থেকে রাঙামাটিবাসী আশা ব্যক্ত করেছেন, রাঙামাটি আসনে শান্তিপূর্ন, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে এবং ভোটাররা নির্ভয়ে ভোট কেন্দ্রে গিয়ে নিজের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিয়ে সংসদে পাঠাতে পারবেন।

 

রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদ জানান, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ ভোট গ্রহণের জন্য সব প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। ভোটারদের কোনো ভয় নেই, নির্ভয়ে ভোট কেন্দ্রে এসে প্রছন্দ প্রার্থীকে ভোট দিতে পারবেন। প্রক্যত ভোট কেন্দ্রে অতিরিক্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন থাকবে।

--হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

উপদেষ্টা সম্পাদক : সুনীল কান্তি দে
সম্পাদক : দিশারি চাকমা
মোহাম্মদীয়া মার্কেট
কাটা পাহাড় লেন, বনরুপা
রাঙামাটি পার্বত্য জেলা।
ইমেইল : info@hillbd24.com
সকল স্বত্ব hillbd24.com কর্তৃক সংরক্ষিত