লামায় বাইরের উপজেলা চাকুরী প্রার্থীদের নিয়োগের অভিযোগে ডিসি`র বরাবর স্মারকলিপি

Published: 07 May 2018   Monday   

লামা উপজেলার স্থানীয় চাকুরী প্রার্থীদের প্রাধান্য না দিয়ে বাইরের জেলা ও উপজেলার চাকুরী প্রার্থীদের নিয়োগ দেওয়ার চেষ্টার অভিযোগে বান্দরবানের স্থানীয় এনজিও তৈমু ও তাজিংডং এর বিরোদ্ধে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়েছে।


সোমবার দুপুর ১২টার সময় স্মারকলিপিটি লামা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নূরে এ জান্নাত রুমি মাধ্যমে বান্দরবান জেলা প্রশাসক বরাবরে এ স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।


৭২ জন চাকুরী প্রার্থী স্বাক্ষরিত স্মারকলিপিতে বলা হয়,বান্দরবানের স্থানীয় এনজিও তৈমু ‘স্যাপলিং’ প্রকল্পের অধিনে লামা উপজেলার ৪টি ইউনিয়ন গজালিয়া, সরই, রুপসীপাড়া ও লামা সদরে ৪০ জন ফিল্ড ফ্যাসিলিটেটর, ৭২ জন স্বাস্থ্য কর্মী ও ৭ জন সিল্টক এজেন্ট নিয়োগে গত ৩০ এপ্রিল ২০১৮ইং পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। পাশাপাশি এনজিও তাজিংডং লামা পৌরসভা, ফাঁসিয়াখালী, আজিজনগর ও ফাইতং ইউনিয়নে ৪০ জন ফিল্ড ফ্যাসিলিটেটর, ৬৮ জন স্বাস্থ্য কর্মী, ৫ জন সিল্টক এজেন্ট নিয়োগে গত ২৫ এপ্রিল ২০১৮ইং পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে।


স্মারকলিপিতে আরো অভিযোগ করা হয়, এনজিও সংস্থা তৈমু ও তাজিংডং এর কর্মকর্তারা লামা উপজেলার স্থানীয় ছেলে-মেয়েদের যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও স্বজনপ্রীতি, দুর্নীতি, ক্ষমতার অপব্যবহার করে অন্যান্য উপজেলার চাকুরী প্রার্থীদের নিয়োগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে নিয়েছে।


এ বিষয়ে এনজিও সংস্থা তৈমু`র বান্দরবানের নির্বাহী পরিচালক বিরেন্দ্র ত্রিপুরার সাথে মুঠোফোনে আলাপকালে তিনি জানান,কারিতাসের সেপ্লিং প্রকল্প কাযর্ক্রম বাস্তবায়নে কয়েক মাস পূর্বে তৈমুর সাথে চুক্তি হয়। নিয়ম অনুযায়ী নিয়োগ দিলেও সেপ্লিং প্রকল্পের ট্রেনিং প্রাপ্ত কর্মীদের নিয়োগ দেয়া হবে। তাজিংডং এনজিও`র বান্দরবানের নির্বাহী পরিচালক চিংসিং মার্মা একই কথা জানিয়েছেন।


লামা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুর-এ জান্নাত রুমি বলেন, এনজিও তৈমু তাজিংডং এর বিরোদ্ধে স্মারকলিপিটি তিনি গ্রহন করেছেন। বান্দরবান জেলা প্রশাসক বরাবরে প্রেরণ করা হবে।
--হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

উপদেষ্টা সম্পাদক : সুনীল কান্তি দে
সম্পাদক : দিশারি চাকমা
মোহাম্মদীয়া মার্কেট
কাটা পাহাড় লেন, বনরুপা
রাঙামাটি পার্বত্য জেলা।
ইমেইল : [email protected]
সকল স্বত্ব hillbd24.com কর্তৃক সংরক্ষিত