চকরিয়ার মাইট্টাটিল্লা পাড়ায় পাহাড় ধসের ঝুকিতে দেড়শত পরিবার!

Published: 03 Aug 2015   Monday   

চকরিয়া উপজেলার বমু বিলছড়ি ইউনিয়নের মাইট্টাটিল্লা পাড়ায় দেড়শত পরিবার পাহাড় ধসের ঝুকিতে বসবাস করছে। চলতি বর্ষা মৌসুমে যে কোন মুহূর্তে পাহাড় ধসের গিয়ে প্রাণহানীর অশংকা করছেন স্থানীয়রা।

জানা গেছে, লামা পৌরসভার সীমান্ত সংলগ্ন কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার বমু বিলছড়ি ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের ঘনবসতি পাড়া হল মাইট্টাটিল্লা পাড়া। ৬ বছর পূর্বে বরইতলী থেকে এসে মাইট্টাটিল্লা পাড়ায় বসতি গড়া মোঃ তাহের পিতা আনোয়ার আলী চকরিয়া ও লামার সরকার দলীয় কিছু নেতার(সম্পর্কে আত্মীয়) ক্ষমতা বলে পাড়ার ভেতরে খাড়া পাহাড়টি কেটে জায়গা বড় করে। আবু তাহের জায়গাটি বড় করতে গিয়ে পাহাড়টি খাড়াভাবে প্রায় ৩০ ফুট কেটে স্থিত করে রাখেন। এতে পাহাড়টির উপরে নিচে প্রায় ১শ ৫০ পরিবার পাহাড় ধসের আশংকায় পড়েছে। পাহাড় ধসের ভয়ে আতংকে সময় পাড় করছে মাইট্্রটিল্লা পাড়ার মানুষ।এছাড়াও অবাধে পাহাড় কাটার কারণে বৃষ্টির পানিতে মাটি নেমে এসে পাড়ার একমাত্র রিংওয়েল, পাড়ার রাস্তা, উঠান ঘরবাড়ী ও ড্রেনেজ ব্যবস্থার ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এতে করে বৃষ্টির পানি স্বাভাবিক প্রবাহিত হতে না পেরে একমাত্র চলাচলের রাস্তাটি ভেঙ্গে গেছে।
মাইট্টাটিল্ল পাড়ার সর্দার মোঃ রাশেদ বলেন, শত বাধা দেয়া সত্ত্বেও গ্রামবাসীর কথা না শুনে বাহুবলে ও বিত্তশালী আত্মীয়ের দাপট দেখিয়ে ভরা বর্ষা মৌসুমে পাহাড় কাটা অব্যাহত রেখেছেন তাহের ও তার পরিবার। বৃষ্টিতে পাহাড় কাটায় পাহাড়ের মাটি নেমে আশপাশের ঘরবাড়ি, ড্রেন, রিংওয়েল, রাস্তাঘাটের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।পাশা পাশি চলতি বর্ষায় পাহাড় ধসে পড়লে পাড়ার অনেক মানুষ মাটি চাপা পড়ার অশংকা রয়েছে। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের জানালেও তারা কোন ব্যবস্থা নেয়নি। উল্টো জন প্রতিনিধিরা তার পক্ষে সাফায় গেয়ে চলেছে বলে তিনি অভিযেআগ করেন।

এ ব্যাপারে আবু তাহেরের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান,জায়গা বড় করার জন্য তার জায়গায় পাহাড় কেটেছেন। তাতে কার কি ক্ষতি হল সেটি তার দেখার বিষয় নয়।
এ বিষয়ে বমু বিলছড়ি ইউপির ২নং ওয়ার্ড মেম্বার এম. কফিল উদ্দিন জানান,পাহাড় কাটার বিষয়টি তিনি অবগত রয়েছেন। পাহাড় না কাটতে মোঃ তাহেরকে নিষেধ করা হয়েছে। তিনি উভয় পক্ষকে নিয়ে বসে সমাধান করার আশ্বাস দেন।

চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ শাহেদুল ইসলাম বলেন, পাহাড় কাটা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করে প্রতিবেদন দিতে সহকারী ভূমি কমিশনারকে দেয়া হবে। এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।
--হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

উপদেষ্টা সম্পাদক : সুনীল কান্তি দে
সম্পাদক : দিশারি চাকমা
মোহাম্মদীয়া মার্কেট
কাটা পাহাড় লেন, বনরুপা
রাঙামাটি পার্বত্য জেলা।
ইমেইল : info@hillbd24.com
সকল স্বত্ব hillbd24.com কর্তৃক সংরক্ষিত