কাপ্তাইয়ে হ্রদের বুকে কচুরিপানার জট,সীমাহীন দুর্ভোগে

Published: 08 Nov 2022   Tuesday   

রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলায় হ্রদে কচুরিপানার জটের কারণে মাত্র ৫ তিন মিনিটের গন্তব্যে পৌঁছাতে সময় লাগছে ২ থেকে ৩ ঘন্টা। এতে সীমাহীন দুর্ভোগে পড়েছে ওই রুটে চলাচলকারী সাধারন মানুষ থেকে পরীক্ষার্থীরা।


জানা গেছে, বর্ষা মৌসুমে ভারী বর্ষনের ফলে উজান থেকে নেমে পাহাড়ী ঢলের তোড়ে ভেসে আসে কাপ্তাই জেটিঘাট এলাকায়। এতে ওই এলাকায় কচুরিপানা জঞ্জালের কারণে সধারন মানুষ থেকে পরীক্ষার্থীরা সময় মতো কেন্দ্রে পৌঁছাতে নানা ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। হ্রদের মাঝপথে ইঞ্জিন চালিত বোট বা লঞ্চের তেল ফুরিয়ে বিপাকে পড়ছে নৌ-যাত্রীরা। অনেকে কচুরিপানা জট পাড়ি দিতে গিয়ে ইঞ্জিনের পাখা ভেঙ্গে সীমাহীন দুর্ভোগে পড়ছে। গত একসপ্তাহ যাবৎ কাপ্তাই হ্রদের বিভিন্ন এলাকা থেকে কচুরিপানা আপস্টিম জেটিঘাটে এসে জড়ো হচ্ছে। যার ফলে আইল্যান্ড এলাকা হতে জেটিঘাট ৫ থেকে ৬ মিনিটের জলপথে পৌছাতে নৌযানের সময় লাগছে ২ থেকে ৩ ঘন্টা। এছাড়া সরকারি-ব্যসরকারি এবং বিভিন্ন সংস্থার লোকজন, কাপ্তাই, বিলাইছড়ি, জরাছড়ি, বরকলসহ বিভিন্ন এলাকায় সঠিক সময়ে পৌঁছাতে পারছে না। ফলে ব্যবসায় ধস নেমেছে।


হরিণছড়ার ইউপি সদস্য অংসাচিং মারমা, নবীন কুমার তনচংঙ্গ্যা ও জেলে পাড়ার উজ্জল দাশ জানান, কচুরিপানার তীব্র যানজটের ফলে পরীক্ষার্থীদের নিয়ে  সঠিক সময়ে কেন্দ্রে পৌঁছানো কঠিন হয়ে পড়েছে। সামনে এই যানজট অপসরণ করা না হলে পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা দেওয়া অনিশ্চিত হয়ে পড়তে পারে। অভিভাবকরা এনিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন।


কাপ্তাই মাছ ব্যবসায়ী দিদারুল আলম জানায়, কচুরিপানার তীব্র যানজটের ফলে সঠিক সময় পন্টুনে পৌঁছাতে না পারায় মাছ পচে মোটা অংকের টাকা গচ্চা যাচ্ছে।
কাপ্তাই মৎস্য উপকেন্দ্র শাখা ব্যবস্থাপক মাসুদ আলম জানান, মাছ পচনশীল। হ্রদ সংলগ্ন বিভিন্ন উপজেলা হতে এসব মাছ সঠিক সময়ে পৌঁছাতে না পারায় ব্যবসায়ী এবং সরকারের ব্যাপক আর্থিক ক্ষতি হচ্ছে। তিনি কচুরিপানার তীব্র জট অপসারণের দাবি জানান।


কাপ্তাই ইউপি চেয়ারম্যান প্রকৌশলী আব্দুল লতিফ  জানান, কচুরিপানা এখন এই এলাকার জাতীয় সমস্যার মত দেখা দিয়েছে। প্রতি বছরের একটা সময় এই কচুরিপানা জট লেগে থাকে। যার ফলে ওইসময় ব্যবসাসহ সব কিছুতেই ধস নামে। এবিষয়ে তিনি কর্ণফুলী পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ব্যবস্থাপককে তাদের মেশিন দিয়ে কচুরিপানা যানজট অপসরণের দাবি করেছি। সহসাই কাপ্তাই বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (বিউবো) কচুরিপানা অপসারনের কাজ করবে আশা করছি।


কাপ্তাই উপজেলা ইউএনও মুনতাসির জাহান জানান, বিষয়টি নিয়ে আমরা উর্ধ্বতন পিডিবি কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করছি। আশাকরি বিষয়টির সহসাই একটি সমাধান সম্ভব হবে।
--হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

উপদেষ্টা সম্পাদক : সুনীল কান্তি দে
সম্পাদক : সত্রং চাকমা

মোহাম্মদীয়া মার্কেট, কাটা পাহাড় লেন, বনরুপা, রাঙামাটি পার্বত্য জেলা।
ইমেইল : [email protected]
সকল স্বত্ব hillbd24.com কর্তৃক সংরক্ষিত