থানচিতে ২ শতাধিক দোকান পুড়ে ছাই

Published: 27 Apr 2020   Monday   

বান্দরবান থানচি উপজেলা সদরের থানচি বাজার আগুনে ২১০টি দোকান পুড়ে গেছে। সোমবার ভোরপাঁচটার দিকে একটি দোকানের বিদ্যুতের শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটে। থানচি বাজার ব্যবসায়ী সমিতি জানিয়েছে এই ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ৩০ থেকে ৪০ কোটি টাকা। ব্যবসায়ীদের অভিযোগ উপজেলাতে ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশন না থাকাতে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ বেশি হয়েছে।

 

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সোমবার ভোর পাঁচটার দিকে থানচি বাজারে অগ্নিকান্ডের ঘটনা শুরু। একে একে পুড়তে পুড়তে ২১০টি ছোট-বড় দোকান পুড়ে ছাই হয়ে যায়। ঘটনা ভোরের দিকে হওয়াতে ওই সময়ে বেশিরভাগ দোকানদার তখনো ঘুম থেকে উঠেনি। তাই বেশিরভাগ দোকানদার দোকানের মালামাল বের করতে পারেনি। অনেক দোকানদার আছে যাদের একমাত্র সম্বল ওই দোকানটি। এই একমাত্র সম্বল পুড়ে যাওয়াতে এখন তাদের পথে বসতে হবে। তাড়াহুড়োতে অনেকের নগদ টাকা পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। অনেক দোকানদারের দোকানের সঙ্গে বসতি-ঘরও রয়েছে। ওই ঘরে তারা পরিবার-পরিজন নিয়ে বসবাস করে আসছেন। অগ্নিকান্ডে দোকানের সঙ্গে লাগোয়া ঘরও পুড়ে ছাই হওয়াতে এখন খোলা আকাশের নিচে অনেক দোকানদারকে বসবাস করতে হবে। ব্যবসায়ীদের অভিযোগ আগুন লাগার পর একে একে যখন দোকানগুলো পুড়ছিল তখনও দেখা নেই ফায়ার সার্ভিসের। আগুন লাগার খবর পেয়ে জেলা শহর থেকে ফায়ার সার্ভিসের একটি দল থানচির উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। ঘটনাস্থলে পৌছাতে পৌছাতে প্রায় তিন ঘন্টা সময় লাগে। ওই সময়ে দোকানগুলো পুড়ে ছাই হয়ে যায়। আগুনের খবর পেয়ে তাৎক্ষনিক উপজেলা প্রশাসন, সেনাবাহিনী, বিজিবি ও পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছায়। কিন্তু আগুনের লেলিহান শিখার কাছে যেতে না পারায় কারোই সাধ্য ছিলো না মালামাল রক্ষায় সহযোগিতার হাত বাড়াতে।

 

থানচি বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি স্বপন বিশ্বাস জানান, প্রায় তিন শতাধিক ছোট-বড় দোকান ও বসতি ঘর পুড়ে গেছে। আগুনের তাদের প্রায় ৩০ থেকে ৪০ কোটি টাকা ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। অনেক দোকানদার তাদের একমাত্র সম্বল দোকানটি হারিয়ে এখন পথে বসার উপক্রম।

 

থানচি প্রেস ক্লাবের সভাপতি ও আওয়ামী লীগ নেতা অনুপম মার্মা জানান, থানচি উপজেলাতে একটি ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশন খুবই প্রয়োজন। আজ ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশন থাকলে এত ক্ষয়ক্ষতি হতো না। আগুনে থানচি প্রেস ক্লাবের অস্থায়ী অফিসও পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপির পক্ষ থেকে আগুনে পুড়ে যাওয়াদের তাৎক্ষনিকভাবে কিছু খাদ্যশস্য বিতরণ করা হয়েছে।

 

থানচি উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফুল হক মৃদুল জানান, প্রাথমিক তদন্তে ধারণা করা হচ্ছে একটি দোকানের বিদ্যুতের শর্টসার্কিট থেকে আগুনে সূত্রপাত ঘটেছে। সোমবার ভোর পাঁচটার দিকে ঘটনা ঘটে। পুড়ে যাওয়া ২১০টি দোকানে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ আনুমানিক ১০ কোটি টাকা হবে ধারনা।

 --হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

 

 

উপদেষ্টা সম্পাদক : সুনীল কান্তি দে
সম্পাদক : দিশারি চাকমা
মোহাম্মদীয়া মার্কেট
কাটা পাহাড় লেন, বনরুপা
রাঙামাটি পার্বত্য জেলা।
ইমেইল : info@hillbd24.com
সকল স্বত্ব hillbd24.com কর্তৃক সংরক্ষিত