• Hillbd newsletter page
  • Hillbd rss page
  • Hillbd twitter page
  • Hillbd facebook page
সর্বশেষ
৩০ লক্ষ শহীদদের স্মরণে জুরাছড়িতে বৃক্ষ রোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন                    বরকলে বৃক্ষ রোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন                    ৩০ লক্ষ শহীদদের স্মরণে রাঙামাটিতে ৫৬ হাজার বৃক্ষরোপণ                    জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে পানছড়িতে সংবাদ সম্মেলন                    পার্বত্য চুক্তির প্রতি শ্রদ্ধা রেখে সবাইকে কাজ করতে হবে-বৃষকেতু চাকমা                    পলি ও ড্যাম নির্মাণের কারণে কাপ্তাই হ্রদে রুই জাতীয় মাছের উৎপাদন কমছে                    কাপ্তাইয়ে মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে সংবাদ সন্মেলন                    লামা ও আলীদমে উন্নয়ন কাজ পরিদর্শনে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড চেয়ারম্যান                    পানছড়িতে বিভিন্ন প্রজাতির সাত হাজার বৃক্ষরোপন                    কাপ্তাইয়ে ফলদ বৃক্ষ রোপন পক্ষ ও জাতীয় ফল প্রদর্শনী জমে উঠেনি!                    লামায় ৩বসত ঘর গুঁড়িয়ে দিয়েছে বন্য হাতির পাল                    কাপ্তাইয়ের অতি বৃষ্টিতে ক্ষতিগ্রস্হ ৯ পরিবারকে টেউটিন ও নগদ টাকা প্রদান                    নানিয়ারচরের ঘিলাছড়িতে এলজিসহ আটক ২                    স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের প্রতিবাদে খাগড়াছড়িতে বিক্ষোভ-সমাবেশ                    আলীকদমে তিন দিনের ফলদ ও বৃক্ষ মেলার উদ্বোধন                    আলীকদমে হাসপাতালের জমি উদ্ধারে গঠিত তদন্ত কমিটির কাজ শুরু                    খাগড়াছড়িতে তথ্য অধিকার বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত                    লামায় মুক্তিযুদ্ধে নিহত ৩০ লাখ শহীদের স্মরনে ৩০ লক্ষ বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি                    রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে সেবা গ্রহীতাদের সাথে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের যৌথ সভা                    রাঙামাটিতে যুবদলের বিক্ষোভ-সমাবেশ                    কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের উপর হামলা ও শিক্ষকদের লাঞ্ছিতের ঘটনায় পিসিপি’র নিন্দা                    
 

পার্বত্য চুক্তি বাস্তবায়ন না হওয়ায় বিজুর জীবন অনিরাপদ-সন্তু লারমা

স্টাফ রিপোর্টার : হিলবিডি টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published: 07 Apr 2018   Saturday

পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি বাস্তবায়ন না হওয়ায় সাংগ্রাই, বৈসু, বিজু, সাংগ্রাইন-এর জীবন নিরাপদ নয় বলে অভিমত ব্যক্ত করেছেন পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদের চেয়ারম্যান ও কল্যাণপুর গ্রামের মুরুব্বী জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় লারমা (সন্তু লারমা)।

 

শনিবার রাঙামাটিতে বিঝু উপলক্ষে রাণী বিনীতা রায় পাঠাগার ও ক্লাবের আয়োজনে আলোচনা সভা ও পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ অভিমত ব্যক্ত করেন।

 

তিনি বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামের জুম্ম জনগণের আত্মনিয়ণাধিকার নিশ্চিতকরণে লড়াই-সংগ্রাম হয়েছে। কেবল মহান নেতা মানবেন্দ্র নারায়ণ লারমা নয়, তারও বহু আগে থেকেই জুম্ম জনগণের এই বিঝুর জীবন সুন্দর ও নিরাপদ করতে আন্দোলন শুরু করেছিলেন। একপর্যায়ে ১৯৯৭ সালে পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছিল। পার্বত্য চুক্তি বাস্তবায়িত না হওয়ায় এখনো পার্বত্যাঞ্চলে সেনাশাসন চলছে। পার্বত্য চট্টগ্রামে উপনিবেশিক শাসন-শোষন বজায় রয়েছে। দেশের শাসকগোষ্ঠী জুম্মদের সংস্কৃতি, বিঝু, সাংগ্রাই, বৈসুকে ধ্বংস করতে চায়। তাই আজকে বিঝুর জীবন কেন নিরাপদ নয় সেটা গভীরভাবে বুঝতে হবে, ভাবতে হবে। বিঝুর জীবন নিরাপদকরণে আমাদের করণীয় কী বা কী ভূমিকা পালন করতে হবে তা কল্যাণপুরবাসীসহ সকলকে গভীরভাবে উপলব্ধি করতে হবে।

 

কল্যাণপুরে অনেক শিক্ষিত ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ রয়েছেন উল্লেখ করে পার্বত্যাঞ্চলের জুম্ম সমাজের সুখী ও সমৃদ্ধশালীকরণে তারা এগিয়ে আসবেন বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

 

উল্লেখ্য, সাংগ্রাই, বৈসু, বিজু, সাংগ্রাইন-এর উৎসব উপলক্ষে রাণী বিনীতা রায় পাঠাগার ও ক্লাবের আয়োজনে  ১৫ দিন ব্যাপী জুম্মদের ঐতিহ্যবাহী খেলাধুলা, শিশু চিত্রাঙ্কন ও সঙ্গীত প্রতিযোগিতা ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।  

 

শহরের কল্যাণপুর এলাকায় আয়োজিত রাণী বিনীতা রায় পাঠাগার ও ক্লাবের সভাপতি সুবীর চাকমা সুজনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো বক্তব্য রাখেন সিএইচটি হেডম্যান নেটওয়ার্কের সহ সভাপতি শক্তিপদ ত্রিপুরা, রাঙ্গামাটি সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অরুণ কান্তি চাকমা ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রিতা চাকমা, রাণী বিনীতা রায় পাঠাগার ও ক্লারে উপদেষ্টা প্রণয় খীসা ও শ্যামা প্রসাদ চাকমা প্রমুখ। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন বিজু উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক কনিষ্ক চাকমা। অনুষ্ঠানে অন্যান্যর মধ্যে উপস্থিত ছিলেন রাণী বিনীতা রায় পাঠাগার ও ক্লাবের উপদেষ্টা মঙ্গল কুমার চাকমা ও আশাপূর্ণ চাকমা, গ্রামের মুরুব্বী দয়ালসুখ চাকমা, অন্ন সাধন চাকমাসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

 

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে শক্তিপদ ত্রিপুরা বলেন, বিজুু, বৈসু, সাংগ্রাই হচ্ছে জুম্ম সংস্কৃতির ধারক-বাহক। এটা জুম্মদের সর্ববৃহৎ ঐতিহ্যবাহী জাতীয় উৎসব। এটি পার্বত্য চট্টগ্রামের সকল জুম্ম জাতিসমূহ একযোগে পালন করে থাকে। তাই এই উৎসব জুম্ম জাতিসমূহের ঐক্য-সংহতি ও মেলবন্ধনের সুযোগ সৃষ্টি করে দেয়। বিজু, বৈসু, সাংগ্রাই কেবল একটি আনন্দের নয়, এটা জুম্ম জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রাম ও আত্মপরিচিতিরই অবিচ্ছেদ্য অংশ। জুম্ম জনগণের সংস্কৃতি ও অধিকার সুরক্ষায় পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি বাস্তবায়নের কোন বিকল্প নেই। জুম্ম সংস্কৃতি সংরক্ষণে ও অধিকার প্রতিষ্ঠায় পার্বত্য চুক্তি বাস্তবায়নের আন্দোলন জোরদার করতে হবে বলে  তিনি অভিমত ব্যক্ত করেন।

 

রাঙামাটি সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অরুণ কান্তি চাকমা বলেন, বিজু উদযাপনে জুম্মদের সংস্কৃতি যাতে প্রতিফলিত সেভাবে পালন করা দরকার। বিজুর সময় যাতে শান্তি, শৃঙ্খলা ও সোহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশ নষ্ট না হয় তার প্রতি সচেতন থাকতে সকলকে তিনি আহ্বান জানান।

 --হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

আর্কাইভ