• Hillbd newsletter page
  • Hillbd rss page
  • Hillbd twitter page
  • Hillbd facebook page
সর্বশেষ
বিলাইছড়িতে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপিত                    রাঙামাটির ফরেস্ট কলোনীর অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে ওমান প্রবাসী টিটু বাঙালী                    কাপ্তাইয়ে নৌ বাহিনী স্কুলে শহীদ দিবস এবং আর্ন্তজাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন                    কাপ্তাইয়ে শহীদ দিবস ও অার্ন্তজাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত                    পানছড়িতে নানান আয়োজনে আর্ন্তজাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন                    ভাষা শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানাল জুরাছড়িবাসী                    খাগড়াছড়িতে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানালেন বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ                    দীঘিনালার জামতলিতে ইউপিডিএফের ওপর সন্ত্রাসী হামলার নিন্দা                    রাঙামাটিতে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত                    মাতৃভাষা দিবসে খাগড়াছড়িতে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাল পিসিপি                    মহালছড়িতে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন                    পানছড়িতে রড়মূড়া পূরনজয় কার্বারী পাড়ায় সার্বজনীন পঞ্চমী তিথি উপলক্ষে ধর্মীয় সভা                    রাঙামাটির তবলছড়িতে অগ্নিকান্ডে ৩০টি ঘর ভষ্মিভূত, আহত ৩                    মাতৃভাষা হারিয়েছে পানছড়ির আদি ত্রিপুরা সম্প্রদায়ের লোকজন                    জুরাছড়িতে কৈশোরকালীন প্রজনন স্বাস্থ্য-পুষ্টি বিষয়ক অবহিতকরণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত                    চাকমা রানীর উপর হামলার প্রতিবাদের খাগড়াছড়িতে মানববন্ধন                    লামায় ১০৬ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে মাত্র ৯টিতে শহীদ মিনার রয়েছে!                    লামায় নব-নির্মিত বিদ্যুৎ উপ-কেন্দ্রের উদ্বোধন                    বিলাইছড়িতে দুই বোনের নির্যাতনের ঘটনায় জাতীয় মানবধিকার কমিশনের তদন্ত কমিটি গঠন                    রাঙামাটি লেকার্স পাবলিক স্কুলের ফুট ব্রীজের নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধন                    পানছড়িতে পিসিপি ৭তম কলেজ কাউন্সিল সম্পন্ন                    
 

পাহাড় ধসের দু’মাস
কাপ্তাইয়ে ৪০ পরিবারের ঠিকানা আজও নিশ্চিত হয়নি।

কাপ্তাই প্রতিনিধি : হিলবিডি টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published: 12 Aug 2017   Saturday
no

no

পাহাড় ধসের দুমাসেও কাপ্তাইয়ের বিভিন্ন সরকারী পরিত্যাক্ত ভবনে আশ্রয় নেওয়া ৪০ পরিবারের ঠিকানা আজও নিশ্চিত হয়নি। এসব পরিবারের প্রায় দুই শতাধিক সদস্য অস্থির অবস্থায় দিন যাপন করছে। তবে কবে নাগাদ এদের পূর্নবাসিত করা হবে, নাকি আদৌ এদের পূর্নবাসিত করা হবে না। তা নিয়ে তারা চিন্তিত আশ্রিতরা।

 

জানা যায়,গেল ১৩ জুন টানা বর্ষন ও পাহাড় ধসে কাপ্তাইয়ের বিভিন্ন স্থানে জানমালের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। সে সময় ক্ষতিগ্রস্থ ও ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় বসবাসরত পরিবার গুলোকে রাখার জন্য উপজেলায় ৩টি আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আশ্রয় কেন্দ্র থেকে অধিকাংশ পরিবার নিজ নিজ বসতঘরে চলে গেলেও অত্যান্ত ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় বসবাসরত ৪০টি পরিবার কাপ্তাই উচ্চ বিদ্যালয় আশ্রয় কেন্দ্রে থেকে যায়। পরবর্তীতে গেল ২ জুলাই এসব পরিবারকে স্থায়ীভাবে পূর্ণবাসনের জন্য উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে এক জরুরী বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ সরকারী দায়িত্বশীল কর্মকর্তা, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, জনপ্রতিনিধি সহ গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

 

সে সময় বিদ্যালয়ে পরীক্ষার কারনে ওই পরিবার গুলোকে কাপ্তাই উচ্চ বিদ্যালয় আশ্রয় কেন্দ্র থেকে সরিয়ে কাপ্তাই ১০ শয্যা হাসপাতালের পরিত্যাক্ত ঘর, বনবিভাগের পরিত্যাক্ত ভবন, জাকির হোসেন স’মিলের পিছনের পরিত্যাক্ত ঘর, বিএফআইডিসি ক্লাবে রাখার সিদ্ধান্ত হয়। দু’মাস হলেও ওই ৪০পরিবারকে স্থায়ীভাবে পূর্নবাসনের কোন সিদ্ধান্ত হয়নি।এ নিয়ে পরিবার গুলো নানা দুশ্চিন্তায় দিন যাপন করছে।

 

এ দিকে চন্দ্রঘোনা ইউনিয়নের মিতিঙ্গাছড়িতে পাহাড় ধসে একই পরিবারের ৩জন নিহত হয়। নিহত নুরনবী (৫০) এর ছোট ভাই নুরকবির বলেন, পাহাড় ধসে আমার বড় ভাই , ভাইয়ের ছেলের বউ ও নাতি মারা যাওয়ার পর থেকে ভাবী রওশন আরা (৪৫) এখনো স্বাবাবিক হতে পারেনি। প্রায়ই স্বামী এবং ছেলের বউ নাতির জন্য চিৎকার করে বিলাপ করতে থাকে। তবে ভাতিজা আব্দুর সবুর (২৮) সে চট্টগ্রামে নিজ কর্মস্থলে কাজ করছে। নিহত কিছু পরিবার এখনো শোক কেটে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরতে পারেনি বলে জানা গেছে।


এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে কাপ্তাই ইউপি চেয়ারম্যান প্রকৌশলী আব্দুল লতিফ জানান, পরিবার গুলোকে পূর্ণবাসনের জন্য অনেক লেখালেখির পর উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষের আশ্বাস পেলেও তেমন অগ্রগতি হয়নি। উপজেলা নির্বাহী অফিসার তারিকুল আলম বলেন, খাস জায়গার অভাবে এদের পূর্ণবাসন সম্ভব হচ্ছে না। উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ দিলদার হোসেন বলেন, ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার গুলোকে স্থায়ীভাবে পূর্নবাসনের জন্য আশ্বাস দেওয়া হলেও তা সম্ভব হয়নি। তিনি আরও বলেন, কাপ্তাই বাসীর প্রাণের দাবী, ক্ষতিগ্রস্থ এসব পরিবার গুলোকে স্থায়ীভাবে পূর্ণবাসন করা হউক।


উল্লেখ্য, কাপ্তাইয়ে পাহাড় ধসের ঘটনায় ১৮ জনের প্রাণহানি, ৬৪জন আহত ও উপজেলার বিভিন্ন স্থানে ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়।
--হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

এই বিভাগের সর্বশেষ
আর্কাইভ