• Hillbd newsletter page
  • Hillbd rss page
  • Hillbd twitter page
  • Hillbd facebook page
সর্বশেষ
রাঙামাটিতে ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ অনুষ্ঠিত                    রাঙামাটি জেলা পরিষদ জেলাবাসীর আর্থসামাজিক উন্নয়নে কাজ করছে-বৃষকেতু চাকমা                    খাগড়াছড়িতে শেখ রাসেলের ৫৩তম জন্ম দিন পালিত                    পানছড়ি জনকল্যাণ বৌদ্ধ বিহারে কঠিন চীবরদান অনুষ্ঠিত                    পাকুজ্জ্যাছড়ি ও সাপমারা প্রাথমিক বিদ্যালয় চ্যাম্পিয়ন                    পাহাড়ে এখন শান্তির সুবাতাস বাইছে- রাঙামাটি রিজিয়ন কমন্ডার                    কাপ্তাইয়ে একটি বাড়ী একটি খামার প্রকল্পের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত                    সামাজিক ক্ষেত্রে অবদান রাখায় সাত গুনী ব্যক্তিকে সন্মাননা দিয়েছে মোনঘর                    রাঙামাটি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের সাথে বিসিএস প্রশিক্ষণার্থীদের সাক্ষাত                    বরকলে গাঁজাসহ শ্বশুড় ও পুত্রবধু আটক                    গ্রীনহীলের কৃষি ও প্রাণী সম্পদ বিষয়ে দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষণ কর্মশালা                    জুরাছড়ির আমতলী ধম্মোদয় বন বিহারে কঠিন চীবর দান অনুষ্ঠিত                    পানছড়িতে জনসংঘ বৌদ্ধ বিহারে কঠিন চীবরদান অনুষ্ঠিত                    চন্দ্রঘোনা খ্রীষ্টিয়ান হাসপাতালে প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা প্রশিক্ষণ কর্মশালা উদ্ধোধন                    শিশুদের সৃজনশীল বিকাশে রাঙামাটিতে দুদিনের চিত্র প্রদর্শনী সমাপ্ত                    রাঙামাটি জেলা ক্রীড়া সংস্থার ক্রিকেট উপকমিটির ১৮ সদস্যর পদত্যাগ                    রাঙামাটিতে শ্রমিকদলের বিক্ষোভ-মিছিল পুলিশি বাধায় পন্ড                    রাঙামাটি জেলা পরিষদের সাথে ইউএনডিপি’র বিশেষজ্ঞ দলের সৌজন্য সাক্ষাত                    খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ভূয়া সংবাদ প্রকাশের প্রতিবাদে রাঙামাটিতে ছাত্রদলের বিক্ষোভ                    কর্ণফুলি ডিগ্রি কলেজের নব নির্বাচিত কমিটিকে স্বাগত জানিয়ে আনন্দ মিছিল                    কাপ্তাইয়ে শিশু কিশোরদের জাতীয় মৌসুমী প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত                    
 

বরকল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ১৪ জন চিকিৎসকের মধ্যে কর্মস্থলে একজনও নেই!

বরকল প্রতিনিধি : হিলবিডি টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published: 31 Jan 2017   Tuesday

রাঙামাটির বরকল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ১৪টি চিকিসৎক পদের মধ্যে দীর্ঘ দিন ধরে ১০টি পদ খালী রয়েছে। তবে ৫জন চিকিৎসককে কাগজে কলমে কর্মরত দেখালেও উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বিভিন্ন প্রশিক্ষণ ও মিটিংয়ে ব্যস্ত থাকেন। অপর ৪ জন চিকিৎসকদের একজন বদলী ও ৩ জন চিকিৎসক প্রশিক্ষনে রয়েছেন।


জানা যায়, জেলার সীমান্তবর্তী বরকল উপজেলার ১০ শয্যা বিশিষ্ট স্থাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসকের পদ রয়েছে ১৪টি। এর মধ্যে বাকী ১০ জন চিকিৎসকের পদ দীর্ঘ দিন ধরে শূন্য রয়েছে। কমপ্লেক্সে ৫জন চিকিৎসকের কাগজেপত্রে কর্মরত দেখানো হলেও এর মধ্যে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ সুইমিপ্রু রোয়াজা মাসের প্রায় সময় বিভিন্ন প্রশিক্ষণ ও মিটিংয়ে ব্যস্ত থাকেন। কর্মস্থলে থাকার কিংবা রোগী দেখার সময় সুযোগ তিনি পান না। মেডিকেল অফিসার ডাঃ ধীমান চৌধুরী সম্প্রতি বদলী হয়ে চলে গেছেন। ডাঃ মামুন রেজা গেল কয়েক মাস ধরে প্রশিক্ষণে রয়েছেন। গেল কয়েকদিন আগে ডাঃ তারেক ভূইঁয়া জাহিন হাসপাতালে যোগদান করেছেন ওই দিনও তিনি প্রশিক্ষণে চলে যান। এর আগে ডাঃ শুভ্রসোম চাকমা পরীক্ষা দিতে চলে যান।


ভুক্তভোগী রোগীদের অভিযোগ, বর্তমানে এ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে হাসপাতালের উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসারকে দিয়ে নাম মাত্র প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে রোগীদের জেলা সদরের হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়ে থাকে। এতে দুরদুরান্ত থেকে আসা রোগীরা যেমনি চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে তেমনি হয়রানি ও আর্থিকভাবে চরম ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন। ।


উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার উপেন্দ্র লাল চাকমা জানান,প্রায় সময় চিকিৎসক প্রশিক্ষণও মিটিং থাকায় তারা কর্মস্থলে থাকতে পারেন না। তাদেরকে আন্তঃ বিভাগ ও বহি বিভাগের রোগীদের দেখাশুনা করতে হয়। তবে চিকিৎসকরা যখন কর্মস্থলে থাকেন তারা তখন রোগী দেখে থাকেন। তাদের সার্মথ্যর বাইরে রোগীদের ঝুঁকি নিতে পারেন না বিধায় রোগীদের রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে পাঠাতে হচ্ছে।


আইমাছড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান অমর কুমার চাকমা জানান,গেল জানুয়ারী রাতে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে তিনি হাসপাতালে গিয়েছিলেন। কিন্তু হাসপাতালে কোন চিকিৎসক নেই। একজন উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার তাকে দেখার পর রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করেছেন। তিনি একজন জনপ্রতিনিধি হিসাবে ষ্পীড বোট (দ্রুতযান) ভাড়া করে জেলা সদরে যাওয়া সম্ভব হয়েছে। কিন্তু একজন গরীব অসহায় রোগীর পক্ষে তা সম্ভব নয়। তাই স্বাস্থ্য বিভাগ কর্তৃপক্ষের উপজেলার মানুষদের স্বাস্থ্য সেবার ব্যাপারে সুদৃষ্টি দেয়া প্রয়োজন।


এব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ সুইমিপ্রু রোয়াজা কর্মস্থলে চিকিৎসক না থাকার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন,বর্তমানে চিকিৎসকরা কেউ প্রশিক্ষণে কেউ পরীক্ষা দিতে গেছেন। আবার কেউ বদলী হয়ে চলে গেছেন। তাছাড়াও ১০ জন চিকিৎসকের পদ বর্তমানে শুন্য রয়েছে। আর তাকে প্রায় সময় সরকারী প্রশিক্ষণ ও মিটিংয়ে থাকতে হয়। যার কারণে কর্মস্থলে চিকিৎসকের সংকট। প্রশিক্ষণ শেষে ফিরে এলে চিকিৎসক সংকট দুর করা সম্ভব হবে বলে তিনি জানান।


উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান বিধান চাকমা বলেন, বরকল উপজেলার একটি মাত্র হাসপাতালে ১৪জন চিকিৎসকের মধ্যে একজনও কর্মস্থলে না থাকা সেটা অত্যন্ত দূঃখজনক। যদি কোন প্রশিক্ষণ কিংবা মিটিং থাকে তাহলে হাসপাতাল শুন্য করে যাওয়া মোটেই ঠিক নয়। তবে এ ব্যাপারে স্বাস্থ্য বিভাগ কর্তৃপক্ষের সেই খেয়াল রাখা দরকার। যাতে করে এ উপজেলার মানুষ স্বাস্থ্য সেবা থেকে বঞ্চিত না হয়।
--হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

এই বিভাগের সর্বশেষ
আর্কাইভ