• Hillbd newsletter page
  • Hillbd rss page
  • Hillbd twitter page
  • Hillbd facebook page
সর্বশেষ
রামগড়ে তথ্য অফিসের প্রেস ব্রিফিং                    রামগড়ে স্বাস্থ্য বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত                    রামগড়ে অভিযানে ভারতীয় মদ ও ইয়াবা উদ্ধার করেছে বিজিবি                    মহালছড়িতে ৩ গ্রামবাসীকে অপহরণের নিন্দা ও প্রতিবাদ ইউপিডিএফের                    রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের মাসিক সভা                    জুরাছড়িতে জেলা পরিষদের নারীদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণ                    রাঙামাটি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের বাঘাইছড়িতে বন্যা কবলিত স্থান পরিদর্শন                    ঈদের ছুটিতে খাগড়াছড়ির বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে দর্শনার্থীদের ভীড়                    বাঘাইছড়িতে দুর্বৃত্তদের গুলিতে এমএন লারমা গ্রুপের জেএসএস`র এক সদস্য নিহত                    রাঙামাটি-খাগড়াছড়ি সড়কে সাময়িকভাবে ভারী যানবাহন বন্ধ                    বান্দরবানের লামায় এক কিশোরীর লাশ উদ্ধার                    রাঙামাটিতে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য্যরে মধ্যে দিয়ে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপিত                    পানছড়িতে দুর্বৃত্তদের গুলিতে এমএন লারমা গ্রুপের জেএসএস’র এক কর্মী নিহত                    খাগড়াছড়িতে মাসব্যাপী আম মেলা শুরু হয়েছে                    ঢাবি’র মেধাবী ছাত্র সুমন চাকমার জীবন বাঁচাতে সহায়তার কামনা                    জেলা পরিষদের বিলাইছড়িতে দুঃস্থদের মাঝে ঈদ বস্ত্র বিতরণ                    জেলা পরিষদের বরকলে বন্যা দুর্গতদের নগদ অর্থ ও বস্ত্র বিতরণ                    লংগদুতে দুুর্বৃত্তদের গুলিতে এমএন লারমা গ্রুপের জেএসএস’র ১ কর্মী নিহত,আহত ১                    বাঘাইছড়িতে বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত,পানিতে ডুবে ১জনের মৃত্যু                    মগবানের টর্নেডোতে ৩টি বাড়ী বিধস্ত,গাছগাছালির ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি                    রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ থেকে কোতয়ালী থানায় টিভি প্রদান                    
 

কাপ্তাইয়ের সম্প্রীতির এক দৃষ্টান্ত

নজরুল ইসলাম লাভলু, কাপ্তাই(রাঙামাটি) : হিলবিডি টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published: 19 Jan 2017   Thursday

কে মুসলিম, কে হিন্দু, আর কে বৌদ্ধ-তা কখনও মুখ্য বিষয় হয়ে ওঠেনি এলাকাটিতে। জন্ম থেকে শুরু হওয়া সম্প্রীতির এ বন্ধন মৃত্যুর পরও যাতে অটুট থাকে এমনটি প্রত্যাশা এখানকার অধিবাসীদের। সম্ভবত এ কারনেই কবর আর শ্মশান গড়ে তোলা হয়েছিল পাশাপাশি। যুগ যুগ ধরে সম্প্রীতির এই উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে কাপ্তাইয়ের চন্দ্রঘোনা থানাধীন রাইখালীবাসী।


একজন মানুষ যে ধর্মেরই হোক, সমাজের যে অবস্থানে থাকুক না কেন, তাকে মৃত্যুকে আলীঙ্গন করতেই হবে। তিনি উচ্চ পর্যায়ে হোন কিনা, কিংবা দিন মজুর হোক তার মৃত্যুকে অস্বীকার করার ক্ষমতা কারোই নেই। চিরন্তন এ সত্যকে ধারন করেই রাইখালীবাসী পাশাপাশি নির্মাণ করেন কবর ও শ্মশান।

তবে স্বাধীনতার পর পরই পাল্টে যেতে থাকে এ চিত্র। স্বাধীনতার কয়েক বছর পর কবরস্থানের পাশে শ্মশান নির্মাণ করেন হিন্দুরা। সম্প্রীতির এমন সুখ থেকে দুরে থাকতে চাইলেন না বৌদ্ধরাও। তারাও কবর ও শ্মশানের পাশে নির্মাণ করলেন সমাধিস্থল। এর পর থেকে আজ পর্যন্ত পাশাপাশি অবস্থান করছে কবরস্থান ও শ্মশান।


রাইখালীবাসীর মতে, পাশাপাশি এ কবর ও শ্মশান এখানকার সব ধর্মের মাঝে সম্প্রীতির বন্ধনকে আরো দৃঢ় করেছে। একমাত্র রাইখালী ছাড়া দেশের আর কোথাও এমন নজির নেই বলেই তাদের দাবী।

  

স্থানীয় ইউপি সদস্য এনামুল হক ও স্থানীয় যুবক টিটু দে জানান, প্রায় অর্ধশত বছর আগে রাইখালী ইউনিয়নের গোডাউন ঘাট এলাকার কর্ণফুলী নদীর পাশে সর্ব প্রথম মুসলমানরাই কবরস্থান নির্মাণ করেন। তখন ওই এলাকায় কিছু সংখ্যক সনাতন ধর্মাবলম্বীর বসবাস ছিল। তবে সনাতন ধর্মের কেউ মারা গেলে তারা বিচ্ছিন্নভাবে মৃত ব্যক্তির সৎকার করতেন। একইভাবে আলাদা জায়গায় মৃত ব্যক্তির সৎকার করতেন এখানকার বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীরাও।

 

রাইখালী ইউপি চেয়ারম্যান সায়ামং মারমা জানান, সম্প্রীতির এই বন্ধন চিরদিন অটুট থাকবে। এই বন্ধন ছিন্ন হবার নয়। তিনি আরো বলেন, রাইখালীবাসীর সম্প্রীতিতে আতংক হয়ে আবির্ভুত হয়েছে কর্ণফুলী নদী। কর্ণফুলীর অব্যাহত ভাঙ্গনে হুমকির মুখে পড়েছে কবরস্থান ও শ্মশান এলাকাটি। ভাঙ্গন রোধে এখনই জরুরী ব্যবস্থা গ্রহন করা প্রয়োজন বলে তিনি মনে করেন।
--হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

আর্কাইভ