• Hillbd newsletter page
  • Hillbd rss page
  • Hillbd twitter page
  • Hillbd facebook page
সর্বশেষ
করোনায় রাঙামাটিতে আরো ৯জন আক্রান্ত, মোট আক্রান্ত ৪৫১জন                    জুরাছড়িতে লক ডাউন নিয়ে যত কথা                    রাঙামাটিতে নারীদের কর্মমুখী করে তুলতে সেলাই মেশিন ও নগদ অর্থ বিতরণ                    যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম বাবুল আর নেই                    রাঙামাটি জেলা পরিষদ থেকে শাহ্ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আসবাবপত্র বিতরণ                    কাপ্তাইয়ে ২ শিশুসহ ৪ জনের করোনা শনাক্ত                    বান্দরবানে এবার সন্ত্রাসীদের গুলিতে মা নিহত ছেলে আহত                    খাগড়াছড়িতে কৃষক প্রশিক্ষণ ও উপকরণ বিতরণ                    খাগড়াছড়িতে নতুন আক্রান্ত ৩৫ জন,মোট আক্রান্ত ৩৫১ জন                    বাঘাইছড়ির বটতলী সড়কের বেহালদশা,দুর্ভোগ চরমে                    প্রয়াত সাংবাদিক আবদুল হামিদ পরিবারকে কল্যাণ তহবিল থেকে আর্থিক সহায়তা                    রাঙামাটি সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের কমিটি গঠন                    ভূমি বেদখলের প্রতিবাদে খাগড়াছড়িতে তিন সংগঠনের বিক্ষোভ                    বরকল সুবলং বাজারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত ২৯ পরিবারকে অার্থিক সহায়তা প্রদান                    কাপ্তাইয়ে করোনা ফোকাল পারসন ডাঃ রনিসহ ৩ জনের করোনা পজেটিভ                    মহালছড়িতে করোনা সংক্রমণ রোধে তথ্য অফিসের প্রচারণা                    রাঙামাটি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের বাসভবন উদ্বোধন                    রাঙামাটিতে ছাত্রলীগ সভাপতি সুজনের মাতৃ বিয়োগে জেলা ছাত্রলীগের শোক প্রকাশ                    বরকলে উন্নয়ন বোর্ডের উদ্যোগে বিভিন্ন পাড়া কেন্দ্রে চারাগাছ বিতরণ                    জেএসএস’র উভয় অংশকে আন্দোলনের ভুল পথ পরিহারের আহ্বান                    বিলাইছড়িতে নতুন করে আরও ৮ জন পুলিশ সদস্যর করোনা সনাক্ত                    
 

দুমাস পর রাঙামাটির পর্যটনের ঝুলন্ত সেতু খুলে দেয়া হয়েছে

বিশেষ রিপোর্টার : হিলবিডি টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published: 21 Nov 2016   Monday

প্রায় দুই মাস বন্ধ থাকার পর পর্যটকদের জন্য খুলে দেয়া হয়েছে রাঙামাটি পর্যটনের আকর্ষনীয় ঝুলন্ত সেতু। পানিতে ডুবে থাকা সেতুর উপর থেকে পানি নেমে যাওয়ায় পর্যটন কর্তৃপক্ষ ঝুলন্ত সেতু পুণরায় খুলে দেয়। ফলে প্রাণ ফিরে পেতে শুরু করেছে রাঙামাটির সরকারী পর্যটন স্পট এলাকা।


রাঙামাটি সরকারী পর্যটন কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা যায়, সম্প্রতি বর্ষা মৌসুমে টানা বর্ষনে কাপ্তাই হ্রদের পানির উচ্চতা অস্বাভাবিক বৃদ্ধির কারণে গেল ১৮ সেপ্টেম্বর রাঙামাটির সিম্বল পর্যটন ঝুলন্ত সেতুটি পানিতে তলিয়ে যায়। এতে পর্যটন কর্তৃপক্ষ ঝুলন্ত সেতুর উপর দিয়ে পর্যটকদের নিরাপত্তার স্বার্থকে বিবেচনা করে পারাপারের জন্য বন্ধ করে দেয়। ফলে রাঙামাটিতে বেড়াতে পর্যটকরা এ ঝুলন্ত সেতুটির সৌন্দর্য উপভোগ করতে পারেননি।

 

তবে কাপ্তাই হ্রদের পানির উচ্চতা কমে যাওয়ায় পর্যটন ঝুলন্ত সেতুটি প্রায় দুই মাস পানিতে ডুবে থাকার পর গেল রোববার থেকে সেতুর উপর দিয়ে পর্যটকদের পাারাপারের জন্য উন্মুক্ত করে দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। ঝুলন্ত সেতুটি পানিতে ডুবে থাকায় সেতুর অনেক পাটাতন নষ্ট হয়ে গেছে। ইতোমধ্যে সেতুর ক্ষতিগ্রস্থ পাটাতনগুলোর সংস্কারের কাজও প্রায় শেষ পর্যায়ে রয়েছে। আসন্ন পর্যটন মৌসুমে রাঙামাটিতে পর্যটকরা নিবিঘ্নে ঝুলন্ত সেতুর উপর দাড়িঁয়ে সৌন্দর্য্য উপভোগ করতে পারবেন এবং পর্যটনের আয়ের মুখ দেখবে বলে আশা করছেন পর্যটন সংশ্লিষ্টরা।


এদিকে, সোমবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, প্রায় দুই মাস সেতুর উপর দিয়ে পারাপার বন্ধ থাকার পর উন্মুক্ত করে দেওয়ায় দেশী-বিদেশী পর্যটকদের উপস্থিতিও বাড়তে শুরু করেছে। সেখানে একদল বিদেশী পর্যটক পর্যটন সেতুর সৌন্দর্য্য উপভোগ করছেন। তবে দীর্ঘ দিন ধরে সেতুটি পানিতে ডুবে থাকায় সেতুর যেসব পাটাতন নষ্ট হয়েছে সেগুলোরও মেরামতের কাজ করতে দেখা গেছে।


রাঙামাটি সরকারী পর্যটন কমপ্লেক্সের ব্যবস্থাপক আলোক বিকাশ চাকমা জানান, গেল রোববার থেকে সেতুর উপর দিয়ে পর্যটকদের পারাপার খুলে দেয়া হয়েছে। তবে দীর্ঘ দিন ধরে পানিতে ডুবে থাকার ঝুলন্ত সেতুর অনেক পাটাতন নষ্ট হয়েছে। সেগুলো ইতোমধ্যে মেরামতের কাজ প্রায় শেষ হয়েছে। আশা করা যাচ্ছে আসন্ন পর্যটন মৌসুমে রাঙামাটিতে পর্যটকরা নিরাপদে পারাপার  ঝুলন্ত সেতু অপরুপ সৌন্দর্য্য উপভোগ করতে পারবেন।


উল্লেখ্য, ৭০ দশকের শেষের দিকে সরকার রাঙামাটি জেলাকে পর্যটন এলাকা হিসেবে ঘোষনা করে। ১৯৮৪ সালের দিকে পর্যটন কর্পোরেশন পর্যটকদের সুবিধার্থে ও মনোরঞ্জনের জন্য দুই পাহাড়ের মাঝখানে তৈরী করে এই আকর্ষনীয় ঝুলন্ত সেতুটি। এ ঝুলন্ত সেতুর পূর্বের দিকে তাকালে দেখা মিলে অপূর্ব স্বচ্ছ জলরাশিসহ ছোটবড় বিস্তৃর্ণ নৈসর্গিক সবুজ পাহাড়।
--হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

আর্কাইভ